দুপুর ০৩:০০ ; সোমবার ;  ২০ মে, ২০১৯  

রিলায়েন্সের ৩০০ কোটি ডলার বিনিয়োগ নিয়ে আলোচনা চলছে

প্রকাশিত:

শেখ শাহরিয়ার জামান॥

বাংলাদেশের অবকাঠামো খাতে সবচেয়ে বড় বিদেশি বিনিয়োগ হতে যাচ্ছে ভারতের অন্যতম শীর্ষ কোম্পানি রিলায়েন্স গ্রুপের মাধ্যমে। ৩০০ কোটি ডলার (প্রায় ২৪ হাজার কোটি টাকা) বিনিয়োগ করে ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপন করতে সরকারের সাথে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে কোম্পানিটি।

প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ’আমাদের মধ্যে আলোচনা চলছে এবং আশা করি ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরের সময় একটি চুক্তি স্বাক্ষর করা সম্ভব হবে।'

বর্তমানে বাংলাদেশে গ্যাস সরবরাহ কম থাকায় রিলায়েন্স বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য তরলীকৃত গ্যাস আমদানি করবে বলেও জানা গেছে।

২০০০ সালের প্রথমদিকে ভারতের অন্যতম বড় কোম্পানি টাটার সাথেও বিএনপি সরকার ৩০০ কোটি ডলারের বিনিয়োগ বিদ্যুৎ ও স্টিল প্রকল্প নিয়ে আলোচনা করেছিল। কিন্তু এ আলোচনা ফলপ্রসূ হয়নি কারণ টাটার দাবি ছিল তাদেরকে নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ করতে হবে, যাতে তৎকালীন সরকার রাজি হয়নি।

রিলায়েন্সের প্রকল্পটি চট্টগ্রামে স্থাপিত হবে এবং এর সম্পূর্ণ বিনিয়োগ করবে ভারতের কোম্পানিটি।

সরকার কোম্পানিটির সাথে একটি বিদ্যুৎ ক্রয় চুক্তি স্বাক্ষর করবে এবং এ চুক্তিটি নির্দিষ্ট মেয়াদ পরপর পর্যালোচনা করা হবে।

বাংলাদেশ এখন ভারতের কাছ থেকে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করে। এ ছাড়া আরও ৫০০ মেগাওয়াট আমদানি প্রক্রিয়াধীন আছে। ত্রিপুরার পালাটানা বিদ্যুৎ প্রকল্পটি থেকে আরও ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ দিতে রাজি আছে ভারত যা এখনও প্রক্রিয়াধীন আছে।

২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর স্বল্প মেয়াদে বিদ্যুৎ ঘাটতি মোকাবিলার জন্য কিছু ছোট ছোট রেন্টাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সঙ্গে চুক্তি করে এবং দীর্ঘ মেয়াদের জন্য বড় বড় কয়েকটি বেস লোড বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের জন্য চুক্তি করে।

এছাড়া প্রতিবেশী দেশ থেকে বিদ্যুৎ আমদানি করার পরিকল্পনাও নেয় এ সরকার। রিলায়েন্সের সাথে এ উদ্যোগ সেই পরিকল্পনারই অংশ।

রিলায়েন্সের ওয়েবসাইট অনুযায়ী তারা বর্তমানে গ্যাস, কয়লা, পানি ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহার করে ৫,৯৪৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করে।

বর্তমানে কোম্পানিটি ২৮,২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য ১৩টি মাঝারি ও বড় আকারের কেন্দ্র তৈরি করছে।

উল্লেখ্য, রিলায়েন্স গ্রুপের মোট সম্পদের পরিমাণ ১৮০,০০০ কোটি ভারতীয় রুপি এবং পাঁচটি মহাদেশে তাদের ব্যবসা আছে।

/এফএ/


 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।