বিকাল ০৫:০৮ ; রবিবার ;  ২০ অক্টোবর, ২০১৯  

এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলে প্রধান বিনিময় মুদ্রা ইউয়ান

প্রকাশিত:

বিজনেস ডেস্ক।।

চীনের সঙ্গে এশিয়া-প্যাসিফিক (প্রশান্ত মহাসাগরীয়) অঞ্চলের লেনদেনের ক্ষেত্রে জাপানি ইয়েন, মার্কিন ডলার কিংবা হংকং ডলারকে হটিয়ে প্রধান বিনিময় মুদ্রা হয়ে উঠেছে ইউয়ান। এ অঞ্চলে গত তিন বছরে চীনা মুদ্রা ইউয়ানের ব্যবহার বেড়েছে তিন গুণ। মূলত বাণিজ্যের তুলনায় বিনিয়োগে অধিক হারে ইউয়ান ব্যবহারই এ মুদ্রাকে জনপ্রিয় করে তুলেছে।

সুইফট ক্লিয়ারিং সিস্টেমের প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়। প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনের সঙ্গে বাণিজ্যে এ অঞ্চলের ২৬টি দেশের মধ্যে মাত্র নয়টি দেশের ইউয়ানের ব্যবহার ১০ শতাংশের নিচে। ২০১২ সালে এ সব দেশের ইউয়ানের ব্যবহার ছিল ১৯ শতাংশের কম।

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এপ্রিলে হংকংসহ চীনের সঙ্গে অঞ্চলটির বাকি দেশগুলোর লেনদেনে ইউয়ানের ব্যবহারের পরিমাণ ছিল ৩১ শতাংশ। ২০১২ সালে এর ব্যবহার ছিল ৭ শতাংশ।

এপ্রিলে অঞ্চলটির সার্বিক লেনদেনে ডলারের ব্যবহার হয় মাত্র ১২ দশমিক ৩০ শতাংশ। এর পরিমাণ ২০১২ সালের এপ্রিলে ছিল ২১ দশমিক ৭ শতাংশ। হংকং ডলার ও জাপানি ইয়েনের অবস্থানও নিচে নেমেছে।

প্রতিবেদনের আরও বলা হয়, চীনের সঙ্গে বাণিজ্যে সিঙ্গাপুর, তাইওয়ান ও দক্ষিণ কোরিয়া অধিকাংশ লেনদেনই ইউয়ানের মাধ্যমে করে। বিশেষ করে মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ায় ক্লিয়ারিং সেন্টার চালুর ফলে ইউয়ানের অবস্থান আরও শক্তিশালী হবে।

চীনের পুঁজিবাজার ও চীনা বন্ডের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বৃদ্ধিকে ইউয়ানের শক্ত অবস্থানের পেছনে অন্যতম কারণ হিসেবে দেখছেন সংশ্লিষ্টরা। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, বিদেশী বিনিয়োগকারীদের চীনা বন্ডের প্রতি আগ্রহ দূর ভবিষ্যতেও বজায় থাকবে।

এ বিষয়ে চায়না ইউনিভার্সালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টোফার গানস বলেন, “আমরা খুচরা ও প্রাতিষ্ঠানিক উভয় দিক থেকেই চীনা বন্ডের প্রতি ইউরোপীয় বিনিয়োগকারীদের ক্রমবর্ধমান আগ্রহ লক্ষ করছি।”

/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।