সকাল ১১:১৫ ; বুধবার ;  ১৩ নভেম্বর, ২০১৯  

পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কে ট্রাকচালকদের অবরোধ

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

পঞ্চগড় প্রতিনিধি॥

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের পণ্য পরিবহণকারী ট্রাকচালক ও হেলপারদের জামিন নামঞ্জুর করায় পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করেছে পঞ্চগড় জেলা বাস-ট্রাক মালিক ও শ্রমিক সংগঠনগুলো। বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে তারা শহরের করতোয়া নদীর ব্রিজের ওপর, ট্রাক টার্মিনাল ও তেতুলিয়া বাসস্ট্যান্ডে এলোমেলোভাবে যানবাহন রেখে মহাসড়ক অবরোধ করে।

মহাসড়ক অবরোধের ফলে ভারি যানবাহনের পাশাপাশি সাইকেল, মোটরসাইকেলও চলাচল করতে পারছে না। ফলে শহরের দুই পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়েছে। দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রী ও সাধারণ মানুষ।

পণ্য পরিবহণকারী ট্রাকচালক ও হেলপারদের আটকের প্রতিবাদ জানিয়ে পঞ্চগড় জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রেনু মিয়া ও জেলা ট্রাক-ট্যাঙ্কলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জসিদুল ইসলাম জসিম জানান, আমদানি-রফতানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ অ্যাসোসিয়েশন এবং স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের লোকদের জেলহাজতে না পাঠিয়ে শ্রমিকদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। শ্রমিকদের জামিন না দেওয়া পর্যন্ত অবরোধ চলবে বলে জানান তিনি।

পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদ জানান, মহাসড়ক অবরোধ প্রত্যাহারে মালিক ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা চলছে। তবে জেলা প্রশাসকের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

গত ১৯ মে রাতে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের পণ্য পরিবহণকারী ৫টি ট্রাকের চালক ও হেলপারদের আটক করে জেলা টাস্কফোর্স। আমদানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের অবৈধভাবে আনা প্রায় আড়াই কোটি টাকার ভারতীয় প্রায় আড়াই হাজার বাইসাইকেল পরিবহণের অভিযোগে তাদের আটক করা হয়। আজ সকালে তাদের আদালতে হাজির করা হয়। চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণ করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে মালিক ও শ্রমিক সংগঠনগুলো দুপুর থেকে মহাসড়ক অবরোধের ডাক দেয়।

/বিএল/এএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।