সকাল ১০:৪৯ ; রবিবার ;  ২১ এপ্রিল, ২০১৯  

সময় এখন পরিচিতি আর যোগাযোগ বাড়ানোর

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

এহতেশাম ইমাম॥

যোগাযোগ। একটি শব্দকে ঘিরে যেন গতিশীল পুরো বিশ্ব। যোগাযোগের ওপর নির্ভরশীলতা যদি প্রভাব রাখে প্রাত্যহিক জীবনের বেশিরভাগ ক্ষেত্রে, তাহলে ভিন্ন রকমের প্রচেষ্টায় এর প্রভাব কতটা?

কোন থিওরি কিংবা প্রতিপাদ্যে নয়, সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে চলতে সবার আগে প্রয়োজন নিজের ভাবনাটিকে সময়োপযোগী করে তোলা। আর সেটি করতে যে কাজটি সবার আগে করা প্রয়োজন তা হচ্ছে অভিজ্ঞদের সঙ্গে আলাপচারিতায় নিজের সেই স্বপ্নটিকে ঝালাই করে নেওয়া। তেমনই এক স্বপ্ন ঝালাইয়ের আসর অনুষ্ঠিত হয়ে গেল ঢাকায়। যেখানে বিভিন্ন চাকরিজীবি, ব্যবসায়ী, ফ্রিল্যান্সার থেকে শুরু করে বিভিন্ন উদ্যোক্তারা এক হয়েছিলেন একই ছাদের নিচে। লক্ষ্য একটাই, এক হয়ে খুঁজে নেওয়া নিজের কর্মপরকিল্পনাটিকে পুরোপুরি অর্থপূর্ণ করে তুলতে একজন সহযোগী বন্ধু খুঁজে নেওয়া।

হতে পারে কেউ শুরু করেছেন নিজের ব্যবসা, কিন্তু খুঁজছেন সঠিক সহপ্রতিষ্ঠাতা। আবার অনেকেই ভাবছেন চাকরি বদলের কথা। এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি ভূমিকা পালন করতে পারে সেটি হচ্ছে নিজের এই ইচ্ছা বা প্রয়োজনটিকে অন্যদের সামনে তুলে ধরা। ফলাফল, একই সময়ে নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে সুযোগ হচ্ছে পরিচিতির সংখ্যাটি বাড়াবার। সেই সুযোগটি তৈরি করে দিলো 'হাব ঢাকা' নামের একটি প্রতিষ্ঠান। তাদের প্রধান লক্ষ্যই হচ্ছে বিভিন্ন পেশাজীবি থেকে শুরু করে ব্যবসায়িক উদ্যোক্তা কিংবা জীবন ধার‌‌‌ণে ভিন্ন কিছু করায় বিশ্বাসী মানুষগুলোকে একত্রিত করা। সেই লক্ষ্যে সম্প্রতি রাজধানীর ইএমকে সেন্টারে অনুষ্ঠিত হলো 'ঢাকা নেটওয়ার্কিং নাইট'। যেখানে অংশ নিয়ে প্রবাসী, কর্পোরেট ব্যক্তিত্ব, শিক্ষার্থী, উদ্যোক্তা থেকে শুরু করে ভিন্ন ভিন্ন পেশায় সম্পৃক্ত অনেকেই তুলে ধরলেন নেটওয়ার্কিং নিয়ে নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গির কথা।

সিভিল ইঞ্জ‌‌িনিয়ারিং এ গ্রাজুয়েট হাসিন হায়দার ।যার, শুরু থেকেই লক্ষ্য ছিল কারও অধীনে কাজ না করে নতুন কিছু করার। তাই নেটওয়ার্কিং নাইটে উপস্থিত হলেন নিজের আরও দুই বন্ধুর সঙ্গে ভিন্ন মাত্রার একটি কর্মপরিকল্পনা নিয়ে।

হাসিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, 'বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ভিন্ন ভিন্ন পদে লোক নিয়োগের বিজ্ঞাপন দিলে খুব স্বাভাবিকভাবেই কয়েক হাজার জীবনবৃত্তান্ত জমা পড়ে। ফলে, কঠিন হয়ে যায় এগুলোর মধ্যে থেকে যোগ্যতাসম্পন্ন লোক খুঁজে বের করা। আমরা এক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতাসহ বিভিন্ন কর্মঅভিজ্ঞতা বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠানগুলোকে যোগ্য লোক খুঁজে দেই।'

যশোর থেকে আসা সন্দেশ ব্যবসায়ী সরকার আফিক বললেন, নিজের নতুন শুরু করা ব্যবসার কথা। অনলাইনে সন্দেশের অর্ডাডের ব্যবস্থা করলেও প্রয়োজন নতুন এই ব্যবসাটির প্রসারে আরও পরিচিতি। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগে স্নাতোকত্তোর তরুণ বললেন, প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা সম্পন্নের পর কর্পোরেট লেভেলের কাজ উপভোগ না করায় নিজের ব্যবসায় নেমেছি। তবে, ব্যবসায়ী হলেও প্রয়োজন ব্যবসা সংক্রান্ত কিছু প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা। ফলে, একইসঙ্গে ব্যবসার প্রচারসহ কিছু প্রাতিষ্ঠানিক বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা পেয়েছি অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া অনেকের কাছ থেকে।

প্রচারণার মাধ্যমে যদি প্রসার হয়ে থাকে তাহলে নিজের প্রচেষ্টাকে অন্যদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়া নয় কেন? সে লক্ষ্যেই আয়োজনে অংশ নিয়েছেন বাংলাদেশ ইয়ুথ এন্টারপ্রাইজ এন্ড হেল্প সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক রাজিব মতিন। যেখানে দেওয়া হচ্ছে ব্যবসা সংক্রান্ত প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষা থেকে বিভিন্ন বিষয়ে প্রারম্ভিক ধারণা।

আনুমানিক ২০০ প্রাণচঞ্চল মানুষের অংশগ্রহণে দু'ঘন্টার এ সাক্ষাৎ আসর জমেছিল নানা কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে। অনুষ্ঠানের শুরুতে হাব ঢাকার প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নিবার্হী সাজিদ ইসলাম শুরু করেন আইস ব্রেকিং সেশন। মাত্র পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে অংশ নেওয়া তরুণ ও যুবারা মেতে ওঠেন পারস্পরিক পরিচিতি আর আলাপচারিতায়। যেটি অব্যাহত থাকে পরবর্তী দু'ঘন্টা।

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সাজিদ ইসলাম বলেন, 'আশপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা ফ্রিল্যান্সার থেকে শুরু করে নতুন উদ্যক্তাদের এক ছাদের নিচে আনার ভিন্নধর্মী লক্ষ্যেই এই উদ্যোগ। যেটির সমন্বয় নতুন নতুন সৃষ্টি ও কর্মপরিকল্পনাকে আরও গতিশীল করবে'।

এই যোগাযোগ বৃদ্ধির কার্যক্রমে 'হাব ঢাকা' পাশে পেয়েছে পেওনিয়ার, ঢাকা রোটারি ক্লাব, কোকাকোলা, চেকমেট, ইউনিফক্স ডিজিটাল, ইমকে সেন্টার, ফিউচার স্টার্ট আপকে।

যারা ইভেন্টটিতে যোগ দিতে অনলাইনে রেজিস্ট্রশেন করেও কোনও কারণে অংশ নিতে পারেননি, তাদের হতাশ করেনি কর্তৃপক্ষ। তাদের জন্য আয়োজন করা হবে 'ঢাকা নেটওয়ার্কিং নাইট-২'। এতে অংশ নিতে ভিজিট করতে পারেন : http://www.hubdhaka.com/ এই ঠিকানায়।

ছবি: চেকমেট

/এমপি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।