বিকাল ০৪:৩৯ ; শনিবার ;  ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯  

এসএমই খাতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি স্থানান্তরে সম্মত কানাডা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

বাংলাদেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পখাতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি স্থানান্তরে সম্মত হয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডিয়ান হাই কমিশনার বেনওয়া পিয়ের লাঘামে।

কানাডিয়ান হাই কমিশনারের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু এ কথা জানান। সোমবার দুপুরে শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে এসএমই ফাউন্ডেশনের চেয়ারপারসন কেএম হাবিব উল্লাহ, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুষেণ চন্দ্র দাস এবং বেগম আফরোজা খানসহ শিল্প মন্ত্রণালয় ও কানাডিয়ান দূতাবাসের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে শিল্পমন্ত্রী বলেন, “বর্তমানে বাংলাদেশে চমৎকার বিনিয়োগ ও ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ বিরাজ করছে। সরকার বিদেশি বিনিয়োগের বিষয়ে উদার নীতি গ্রহণ করেছে। ফলে জাপান, কোরিয়া, চীন ও ভারত বাংলাদেশে বিনিয়োগের জন্য বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলের সুবিধা চেয়েছে।”

কানাডিয়ান উদ্যোক্তারা বিনিয়োগের আগ্রহ দেখালে তাদের বিষয়টিও জাতীয় স্বার্থ ও সরকারের উদার বিনিয়োগনীতির সঙ্গে সমন্বয় করে বিবেচনা করা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

আমির হোসেন আমু বলেন, “বাংলাদেশে জাহাজ নির্মাণ শিল্প দ্রুত বিকশিত হচ্ছে। ইতিমধ্যে ইউরোপের দেশগুলোতে জাহাজ রফতানি করেছে বাংলাদেশ।”

তিনি জাহাজ নির্মাণখাতে যৌথ বিনিয়োগে এগিয়ে আসতে কানাডার উদ্যোক্তাদের প্রতি আহবান জানান। পাশাপাশি বাংলাদেশে সিরামিক, ওষুধ, চামড়াসহ সম্ভাবনাময় শিল্পখাতে বিনিয়োগে এগিয়ে আসতে তিনি কানাডিয়ান হাই কমিশনারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

বৈঠকে কানাডিয়ান হাই কমিশনার জানান, কানাডায় শিল্প কারখানার শতকরা ৯০ ভাগ এসএমইখাতের আওতাভূক্ত। উচ্চ প্রযুক্তির ফলে এসএমইখাতে মূল্য সংযোজনের পরিমাণ অনেক বেশি। এসএমইখাতের কানাডিয়ান প্রযুক্তি স্থানান্তরের মাধ্যমে বাংলাদেশি উদ্যোক্তারা লাভবান হতে পারে।

তিনি বাংলাদেশের জনবলের দক্ষতা, সৃজনশীল শক্তি ও কাজের প্রতি গভীর আগ্রহের প্রশংসা করেন।

/এসআই/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।