রাত ১১:৫৬ ; সোমবার ;  ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮  

মজুরি বৈষম্য দূর করতে হবে সরকারকেই

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

‘বৃহত্তর অর্থনীতিতে নারীর অংশগ্রহণ উৎসাহিত করতে নারী-পুরুষের মধ্যে মজুরি বৈষম্য দূর করতে হবে সরকারকেই। পাশাপাশি সমাজে পিছিয়ে পড়া নারীদের উৎসাহ ও সাহস যোগাতে হবে আমাদের সকলকে।’ এমন অভিমত প্রকাশ করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ সংসদ সদস্য মাহবুব আরা গিনি।

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ আয়োজিত ‘পুনরুৎপাদনমূলক ভূমিকা ও নারী’ শীর্ষক এক সেমিনারে এ অভিমত প্রকাশ করেন তিনি।

মাহবুব আরা বলেন, ‘আমাদের গ্রামের নারীরা তাদের অধিকারের ব্যাপারে এখন আগের চেয়ে বেশি সোচ্চার ও সচেতন। সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মিলিত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশের নারীরা আজ অনেকদূর এগিয়েছে।’ 

আমাদের মায়েদের ঘর থেকে বের করে আনার ব্যাপারে এনজিওগুলোর অনেক ভূমিকা রয়েছে দাবি করে হুইপ বলেন, ‘সমাজের অর্ধেক নারী। তাই পুরুষের পাশাপাশি নারীদেরও উন্নয়নের সাথে সম্পৃক্ত করতে হবে।'

একই সেমিনারে রোকেয়া কবীর বলেন, ‘অস্বীকৃত ও অদৃশ্য অবদানের স্বীকৃতি ও মূল্যায়নের জন্য যে কোনও পরিবারের পুরুষ সদস্যদের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানো জরুরি বিষয়।’

নারীর কাজের স্বীকৃতি দিতে হলে আগে তাদের শিক্ষার পরিবেশ, কাজের পরিবেশ ও চলাফেরার স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে হবে বলেও জানান তিনি। 

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. সায়মা হক বিদিশা।

সভাপ্রধান রোকেয়া কবীরের সঞ্চালনায় সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক বজলুল হক খন্দকার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. আইনুন নাহার, ইনস্টিটিউট অব ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ভালনারেবিলিট স্টাডিজ-এর পরিচালক অধ্যাপক ড. মাহবুবা নাসরীন, ড. হান্নানা বেগম প্রমুখ।


 

/এসআইএস/এফএ/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।