রাত ০৩:৪৭ ; মঙ্গলবার ;  ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮  

ঢাকার নগরপিতা আনিস ও খোকন আর চট্টগ্রামে নাছির

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

তিন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছে সরকার সমর্থিত মেয়র প্রার্থীরা। ঢাকা উত্তরে আনিসুল হক, দক্ষিণে সাঈদ খোকন ও চট্টগ্রামে বিজয়ী হয়েছেন আ জ ম নাছির উদ্দিন। যদিও এখনও পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে ফল ঘোষণা করা হয়নি।

ভোট চলাকালীন বিভিন্ন কেন্দ্রে ব্যাপক কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ এনে প্রথমে চট্টগ্রামে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। একই অভিযোগে এর কিছু সময় পরই ঢাকার দুই সিটিতেও ভোট থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেয় দলটি।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আনিসুল হক টেবিল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। উত্তরের একা হাজার ৯৩টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে সবগুলোর ফলাফলের ভিত্তিতে তাকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন উত্তরের প্রধান রিটানিং কর্মকর্তা শাহ আলম।

আনিসুল হক পেয়েছেন চার লাখ ৬০ হাজার ১১৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত তাবিথ আউয়াল বাস প্রতীকে পেয়েছেন তিন লাখ ২৫ হাজার ৮০ ভোট।

তৃতীয় স্থান পেয়েছেন ইসলামি শাসনতন্ত্র আন্দোলনের শেখ মো. ফজলে বারী মাসউদ। তার প্রাপ্ত ভোট ১৮ হাজার ৫০ ভোট। এরপর ভোটের হিসেব অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে রয়েছেন, বিকল্পধারার মাহী চৌধুরী। তার প্রাপ্ত ভোট ১৩ হাজার ৪০৭। গণসংহতির জোনায়েদ আব্দুর রহিম সাকির প্রাপ্ত ভোট সাত হাজার ৩৭০। জাতীয় পার্টির বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল পেয়েছেন দুই হাজার ৯৫০ ভোট।

উত্তর সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে নির্বাচন করেছেন ১৬ জন। অন্যান্য প্রার্থীদের প্রাপ্ত ভোট - সিপিবি-বাসদ সমর্থিত আব্দুলাহ আল ক্বাফি (কাফী রতন) হাতি প্রতীকে পেয়েছেন দুই হাজার ৪৭৫, কে ওয়াই এম কামরুল ইসলাম ক্রিকেট ব্যাট প্রতীকে পেয়েছেন এক হাজার ২১৬, কাজী মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ ইলিশ মাছ প্রতীকে দুই হাজার ৯৬৮, চৌধুরী ইরাজ আহমেদ সিদ্দিকী লাউ প্রতীকে ৯১৫, নাদের চৌধুরী ময়ূর প্রতীকে এক হাজার ৪১২, মোয়াজ্জেম হোসেন খান মজলিস ফ্লাক্স প্রতীকে এক হাজার ৯৫, আনিসুজ্জামান খোকন ডিস এন্টেনা প্রতীকে ৯০০, মো. জামাল ভূঁইয়া টেবিল প্রতীকে এক হাজার ১৪০, শামসুল আলম চৌধুরী চিতা বাঘ প্রতীকে ৯৮২ এবং শেখ শহীদুজ্জামান দিয়াশলাই প্রতীক ৯২৩ ভোট।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ৩৬টি সাধারণ ওয়ার্ড ও ১২টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ২৩ লাখ ৪৫ হাজার ৩৭৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১২ লাখ ২৪ হাজার ৭০১ জন ও নারী ভোটার ১১ লাখ ২০ হাজার ৬৭৩ জন। উত্তরে এক হাজার ৯৩টি ভোটকেন্দ্রে ৫ হাজার ৮৯২টি ভোটকক্ষে ভোট নেওয়া হয়। প্রিসাইডিং অফিসার জানিয়েছেন, মোট বৈধ ভোট পড়েছে আট লাখ ৪১ হাজার। অন্যদিকে ভোট বাতিল হয়েছে ৩৩ হাজার ৫৮১টি ভোট।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সাঈদ খোকন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মির্জা আব্বাসকে ২ লাখ ৪১ হাজার ৫ ভোট ব্যবধানে পরাজিত করেন তিনি।

ডিএসসিসির ৮৮৯টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৮৮৬টি কেন্দ্রের ফল পাওয়া গেছে। বাকি ৩টি কেন্দ্রে গোলযোগের কারণে ভোটগ্রহণ স্থগিত হয়। স্থগিত কেন্দ্র তিনটির মোট ভোট ৬ হাজার ৩২৬।

ইলিশ মাছ প্রতীক নিয়ে মেয়র পদে ৫ লাখ ৩৫ হাজার ২৯৬ ভোট পেয়ে মেয়র নির্বাচিত হন সাঈদ খোকন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মগ প্রতীক নিয়ে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মির্জা আব্বাস পেয়েছেন ২ লাখ ৯৪ হাজার ২৯১ ভোট।

বুধবার ভোর সাড়ে ৫টায় গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে স্থাপিত ডিএসসিসির নির্বাচনী কার্যালয়ে প্রধান রিটার্নিং কর্মকর্তা মিহির সারওয়ার মোর্শেদ আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন।

৪৮.৫৭ শতাংশ হারে প্রদত্ত ভোট ৯ লাখ ৫ হাজার ৪৮৪। বাতিল হয়েছে ৪০ হাজার ১৩০ ভোট, বৈধ ভোটের সংখ্যা ৮ লাখ ৪৫ হাজার ৩৫৪।

অপর ১৮ মেয়র প্রার্থীরা পেয়েছেন- জাতীয় পার্টির সাইফুদ্দিন মিলন (সোফা) ৪৫১৯ ভোট, বাসদের বজলুর রশীদ ফিরোজ (টেবিল) ১০২৯, গোলাম মওলা রনি (আংটি) ১৮৮৭, আসাদুজ্জামান রিপন (কমলা লেবু) ৯২৮, মো. আকতারুজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লাহ (লাউ) ৩৬২, রেজাউল করিম চৌধুরী (টেবিল ঘড়ি) ২১৭৩, আব্দুল খালেক (কেক) ৫৫০, জাহিদুর রহমান (ল্যাপটপ) ৯৮৮ ও আবু নাছের মোহাম্মদ মাসুদ হোসাইন (চরকা) ২১৯৭, বাহরানে সুলতান বাহার (শার্ট) ৩১২, শাহীন খান (জাহাজ) ২০৭৪, দিলীপ ভদ্র (হাতি) ৬৫৯, শহীদুল ইসলাম (বাস) ১২৩৯, শফিউল্লাহ চৌধুরী (ময়ূর) ৫১২, এ এস এম আকরাম (ক্রিকেট ব্যাট) ৬৮২, আব্দুর রহমান (ফ্লাস্ক) ১৪৭৮৪, মশিউর রহমান (চিতা বাঘ) ৫০৮ ও আয়ুব হোসেন (ঈগল) ৩৫৪।

অন্যদিকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আ জ ম নাছির উদ্দিন বেসরকারিভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।

হাতি প্রতীক নিয়ে নাছির পেয়েছেন চার লাখ ৭৫ হাজার ৩৬১ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নির্বাচন বর্জন করা বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী এম মনজুর আলম কমলা লেবু প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন তিন লাখ ৪ হাজার ১৩৭ ভোট।

মোট ৭১৯টি কেন্দ্রের মধ্যে সব ক’টির প্রাপ্ত ফলাফলে এক লাখ ৭১ হাজার ২২৪ ভোটের ব্যবধানে মনজুরকে হারিয়ে জয়ের মুকুট পরলেন আ জ ম নাছির উদ্দিন।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৩টার দিকে চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়াম হলে স্থাপিত নির্বাচন কমিশনের অস্থায়ী কন্ট্রোল রুমে এ ফলাফল ঘোষণা করেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ‍আবদুল বাতেন।

/এমআর/এসটি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।