রাত ০৫:৪২ ; বুধবার ;  ২৩ অক্টোবর, ২০১৯  

সেবা খাতের মেলায় যোগ দিতে ভারত গেলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

ভারতসহ দক্ষিণ এশিয়ার দেশসমূহের সঙ্গে বিশ্বের অন্যান্য দেশের সেবা খাতের উন্নয়ন ও বাণিজ্য সম্প্রসারণে ভারতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে 'ফাস্ট ইন্ডিয়ান গ্লোবাল এক্সিবিশন অন সার্ভিস-২০১৫ (জিইএস)' শীর্ষক মেলা। এ উপলক্ষে ভারত সরকারের আমন্ত্রণে নয়া দিল্লির উদ্দেশে বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা ত্যাগ করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

দেশটির বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়, সার্ভিস এক্সপোর্ট প্রমোশন কাউন্সিল এবং কনফেডারেশন অব ইন্ডিয়ান ইন্ডাষ্ট্রি যৌথ ভাবে এ মেলার আয়োজন করেছে। নতুন দিল্লীর প্রগতি ময়দানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আগামীকাল শুক্রবার এ মেলার উদ্বোধন করবেন।

ওই দিন বিকালে তোফায়েল আহমেদ দুই দিনব্যাপী এ মেলার মূল বিষয়ের উপর তাঁর বক্তব্য উপস্থাপন করবেন। এ মেলা চলবে ২৫ এপ্রিল শনিবার পর্যন্ত। ওই দিনই তিনি দেশে ফিরবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

এ মেলায় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ অংশ গ্রহণ করবেন। বাণিজ্যমন্ত্রী বর্তমানে স্বল্প উন্নত দেশ সমূহের (এলডিসি) সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করছেন। মেলায় অংশ গ্রহণ করে তিনি এলডিসিভুক্ত দেশ সমূহের সেবা খাতে বিরাজমান সমস্যা তুলে ধরে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সিদ্ধান্ত মোতাবেক সুবিধাদি প্রাপ্তি বিষয়ে প্রস্তাবনা উপস্থাপন করবেন।

এ ছাড়া তিনি বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে পারস্পরিক মতবিনিময় করবেন। এটি দেশের বাণিজ্যের প্রসার তথা অর্থনৈতিক উন্নয়ন সংক্রান্তনীতি নির্ধারণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। মন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারত বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও অন্যান্য দ্বিপাক্ষিক বিষয়েও মতবিনিময় করবেন।

ভারত বাংলাদেশের বন্ধু প্রতিম ও উন্নয়ন সহযোগী দেশ। দুই দেশের বাণিজ্য সম্পর্কও সুদৃঢ়। দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের পরিমানও বিপুল এবং বাণিজ্যের ভারসাম্য বাংলাদেশের প্রতিকূলে। ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে আনতে ভারতে অনুষ্ঠেয় বাণিজ্য মেলায় বাংলাদেশের অধিকতর অংশগ্রহণ এবং ভারতের সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে বাণিজ্য সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ক্রমাগত আলোচনা চালিয়ে যাওয়া প্রয়োজন।

/এসআই/এফএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।