বিকাল ০৪:২৯ ; সোমবার ;  ১৪ অক্টোবর, ২০১৯  

যােগ্য দুটি দলই বিশ্বকাপের ফাইনালে গেল

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

হাবিবুল বাশার॥

বিশ্বকাপে ১৯৯২ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত টানা ১৯ বছরে ৬ বার ফাইনালে দক্ষিণ এশিয়ার কোন না কোন দলকে দেখা গেছে। তবে সেই ধারা ভঙ্গ করে এবার যোগ্য দল হিসেবেই ফাইনালে গোলো দুই স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড।

আজ শেষ সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতের খেলাটা নিয়ে বাংলাদেশের দর্শকদের বেশ উৎসাহ ছিল। কারণটা বোধহয় অার এখানে বলার প্রয়োজন নেই। আমাদের বেশির ভাগ দর্শকের চাওয়া ছিল ভারতকে হারিয়ে অস্ট্রেলিয়া ফাইনালে যাক। অসিরাও তাদের নিজেদের স্বরূপ দেখিয়েই ফাইনালে গেলাে।

ভারত সুযোগ পেয়ে চেষ্টাও করেছিল, তবে অসিরা তাদের চাইতে অনেক বেশি এগিয়ে ছিল। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে খেলা হলেও আজ কন্ডিশন অসিদের জন্য পুরোপুরি সহায়ক ছিল না। তাদের একটা ক্ষমতা আছে, তারা সব কন্ডিশনেই ভালো খেলতে পারে। চাপে থেকেও কীভাবে ভালো খেলতে হয় তারা সেটা সবার চাই‌‌‌তে ভালো জানে।

আজকে অসিদের ব্যাটিংয়ের শুরুটা কিন্তু ভালো হয়নি। এই বিশ্বকাপে ডেভিড ওয়ার্নার আবারো আমাদের হতাশ করলো। তবে এই বিশ্বকাপে যার ব্যাটের উপর ভর করে অসিরা এগিয়েছে তিনি হলেন স্টিভেন স্মিথ। গ্রীষ্মকালীন মৌসুমে থেকে অসিদের হয়ে দুর্দান্ত ব্যাট করেছে। অাজকের এমন ইনিংস না খেললে হয়তো অস্ট্রেলিয়া তিনশ রান করতে পারতো না। চাপে থেকেও আজ দায়িত্বশীল একটা ইনিংস খেলেছে। সঙ্গে ফিঞ্চের ইনিংসটিও ছিল গুরুত্বপূর্ণ। উইকেটের অাচরণ পরিবর্তন হলেও ফিঞ্চের ব্যাটিংয়ের উপর ভর করে বাকিরা সহজে এগিয়েছে।

যখন ভারতকে অসিরা ৩২৯ রানের টার্গটে দিল। তখন দেখার বিষয় ছিল ভারতের মতো বিখ্যাত ব্যাটিং লাইন অাপ জবাবটা কীভাবে দেয়। তবে বিপরীত দলে ছিল মিচেল স্টার্ক, হ্যাজলউডের মতো চমৎকার সব পেসার। তার সঙ্গে অাজকের গুরুত্বপূর্ণ খেলায় বল হাতে চমৎকার ভাবে জ্বলে উঠে মিচেল জনসন। তাই ভারত তেমন সুবিধাই করতে পারেনি। ধাওয়ান এবং রোহিত শর্মা ভালো শুরু করার চেষ্টা করেছিল। তবে তাদের আউটের পর নিয়মিত উইকেট পড়তে থাকায় ভারতের শেষ রক্ষা হয়নি।

প্রথম সেমিফাইনালের মতো উত্তেজনাপূর্ণ খেলা না হলেও যােগ্য দুটি দলই বিশ্বকাপের ফাইনালে গেলো। এখন আশা করি, ফাইনালটা ফাইনালের মতোই হবে।

/এনএস/এফআইআর/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।