রাত ০৯:৪১ ; রবিবার ;  ২১ জুলাই, ২০১৯  

সব দলকে অাঁট-ঘাট বেঁ‌‌‌ধেই নামতে হবে

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

হাবিবুল বাশার॥

গ্রুপ পর্যায়ের খেলা শেষে কাল থেকে মাঠে গড়াতে যাচ্ছে নকআউট পর্ব। বলতে গেলে উত্তেজনায় ঠাসা বিশ্বকাপের অাসল ঝাঁজ যাকে বলে সেটাই টের পেতে যাচ্ছি।

এখানে বলে রাখা ভালো প্রত্যেক দলই গ্রুপ পর্যায়ে ভালো খেলে নকআউট পর্বে স্থান করে নিয়েছে। গ্রুপ পর্বে কিন্তু প্রত্যেক দলেরই সুযোগ থাকে। যেমন পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ গ্রুপ পর্বে প্রথমদিকে খারাপ করলেও শেষ দিকে ঘুরে দাঁড়িয়ে নকআউটে চলে এসেছে। কিন্তু নকআউট পর্বে 'দ্বিতীয়বার' বলতে কোনও সুযোগ নেই। তাই সব দলকেই অাঁট ঘাট বেঁ‌‌‌ধেই মাঠে নামতে হবে।

কাল প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে শ্রীলঙ্কা ও দক্ষিণ আফ্রিকা মুখোমুখি হতে যাচ্ছে। দু'দলই বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার ক্ষমতা রাখে। যেহেতু নকআউট পর্ব, তাই একটি দলকে খালি হাতে বিদায় নিতেই হবে।

শ্রীলঙ্কাকে নিয়ে অালাদা করে এটাই বলবো, এ বিশ্বকাপে ওরা ভালো খেলেছে। দলটি বরাবারই প্রত্যেক বিশ্বকাপে ভালো খেলে থাকে। ব্যাটিংয়েও ভালোই করছে। এছাড়া লঙ্কান দেয়াল সাঙ্গাকারা এবারের বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রানের অধিকারী। দিলশান, মাহেলারাও ব্যাট হাতে ভালো পারফর্ম করছে। তাই বলা যায় ব্যাটিং স্তম্ভ নিয়ে শ্রীলঙ্কা বেশ শক্তিশালী অবস্থানেই রয়েছে।

তবে শ্রীলঙ্কার বোলিং কিন্তু সন্তোষজনক হচ্ছে না। সঙ্গে হেরাথের অনুপস্থিতিও ওদের খুব ভোগাচ্ছে। তাছাড়া মালিঙ্গা বিশ্বকাপে নিজেকে সেভাবে মেলে ধরতে পারেনি। তাই পরের ম্যাচে ভালো কিছু করতে হলে বোলিংয়ে ভালো পারফর্ম করতে হবে। বিশেষ করে বোলিংয়ে মালিঙ্গাকেই অাক্রমণের বিশাল দায়িত্বটা নিতে হবে।

অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকাকে এবার গ্রুপ পর্যায়ে একটু ভিন্নরূপে দেখা গেছে। অাগের বারের বিশ্বকাপগুলোতে গ্রুপ পর্যায়েও ওদের চোখ ধাঁধানো পারফরম্যান্সের দেখা মিলেছে। তবে এবারের গ্রুপ পর্যায়ে সেরকম কিছু হয়নি। দুটি খেলা হেরে পরের রাউন্ডে উঠেছে তারা।

বোলিংয়ের দিক থেকে বলতে গেলে অবশ্য শ্রীলঙ্কার চেয়ে তাদের বোলিং বিভাগ শক্তিশালীই। যদিও ডেল স্টেইনের 'স্টেইন গান' অাগের মতো হানা দিতে পারছে না, খুব একটা উইকেটও পেতে দেখা যাচ্ছে না। কিন্তু নিয়মিত ভালো লাইন লেংথ বজায় রেখে বল করছে। আর ব্যাটিংয়ের দিক থেকে চিন্তা করলে একমাত্র সফল বলবো, ডি ভিলিয়ার্স। প্রতি ম্যাচেই তার ব্যাটিংয়ে বড় অবদান থাকছে।

এছাড়া প্রোটিয়াদের খেলায় ধারাবাহিকতাও দেখা যায়নি। কোনও খেলায় আগে ব্যাটিংয়ে নেমে চারশ'র বেশি রান করেছে তো আবার ২৩২ রান তাড়া করতে গিয়ে দ্রুত গুটিয়ে যেতেও দেখা গেছে। এতে বুঝাই যায় টার্গেটে খেলতে গিয়ে দুর্বলতার পরিচয় দিচ্ছে তারা। তাই ব্যাটিংয়ে সবারই ফর্মে ফেরা উচিৎ।

আশা করি, প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে বেশ জমজমাট খেলা উপভোগ করতে পারবো।

/এঅার/এফঅাইঅার/এফএস/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।