রাত ০৯:০৮ ; মঙ্গলবার ;  ১৮ জুন, ২০১৯  

জিনিয়াকে বাঁচান, বাঁচবেন আপনিও!

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

মিছবাহ পাটওয়ারী॥

পত্রপত্রিকায় সচরাচর নানা ধরনের সাহায্যের আবেদন দেখা যায়। তবে এবার নেওয়া হয়েছে মানবিক সাহায্যের ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগ। অন্যের জীবন বাঁচাতে আপনার করা সাহায্য ভবিষ্যতে আপনার নিজের জীবন বাঁচাতেও কাজে লাগবে। তাই নিজেকে ও তাকে বাঁচাতে ঝাপিয়ে পড়তে পারেন এক্ষুণি। 

যার কথা বলছি, তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) মেধাবী শিক্ষার্থী জিনিয়া। ক্লাস ওয়ান থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত সে কখনও কোনও ক্লাসে সেকেন্ড হয়নি। বাবা নেই। তাই টিউশনি করে পড়াশুনার খরচ চালাতো সে।

২০০ টাকা দিয়ে জীবন বাঁচানোর জন্য দরকারি একটা ব্যাজ কিনলে সেখান থেকে ১০০ টাকা চলে যাবে জিনিয়ার অ্যাকাউন্টে। ব্যাজ সংগ্রহ করতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে: https://docs.google.com/forms/d/1L-JcTh4iUMtk2bc6CKfxHOiXHFyGUnGNANSLR_9dIzM/viewform?c=0&w=1

প্রিয় মানুষকে সারপ্রাইজ দিতে কতকিছু করি। খুব কি কষ্ট হবে মোবাইলে ফ্লেক্সিলোড দিতে যাওয়ার সময় জিনিয়ার বিকাশ নাম্বারে ১০০টাকা পাঠাতে। বিকাশ নাম্বার ০১৭৩৮২৭৫১২৭।

নগদ অার্থিক সহায়তা করতে পারেন স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের গুলশান নর্থ শাখায় জিনিয়ার ভাইয়ের অ্যাকাউন্টে। অ্যাকাউন্ট নাম্বার ১৮১১৭১০৫৯০১। ব্রাঞ্চ রাউটিং নাম্বার ২১৫২৬১৯০০। বাংলাদেশের জন্য সুইফট কোড SCBLBDDX

বলছিলাম জিনিয়ার কথা। কঠিন জীবন সংগ্রাম যখন শেষের পথে, আলোর ছটায় যখন চারপাশ ঝলমল করার কথা ঠিক তখনই মরণব্যধি ব্লাড ক্যান্সার সব অন্ধকার করে দেয়। মেয়েটা এতোটাই এক্সেপশনাল যে তার ব্লাড গ্রুপ 'ও পজিটিভ'। ব্যায়বহুল ‘বোনম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট’ করতে হবে তার। এতে খরচ পড়বে কমপক্ষে ৭৫ লাখ টাকা।

টাকার অংকটা হয়তো বিশাল। আমাদের সম্মিলিত উদ্যোগের কাছে আশা করি পরাজিত হবে এই দুর্দমনীয় বাধা। জিনিয়ার চিকিৎসার জন্য অন্য অনেকের মত একটি উদ্যোগ নিয়েছেন ফেসবুক সেলিব্রেটি আরিফ আর হোসাইন। https://www.facebook.com/fatema.nazla/posts/10152707950657227?notif_t=like

অন্যকে বাঁচাতে গিয়ে নিজে বেঁচে যাওয়ার বিষয়টা এ রকম। রাস্তায় একটা স্কুলপড়ুয়া ছেলে এক্সিডেন্ট করেছে। তাকে ঘিরে আশেপাশে অনেকে ভিড় করে আছেন। আহত ছেলেটির বুকে, সেইফটি পিন দিয়ে একটা ব্যাজ লাগানো। হুট করে ভিড়ের মাঝ থেকে একটা ছেলে এগিয়ে আসলো। সে তার ফোন বের করে সেই ফোনের 'বার কোড রিডার' দিয়ে সেই ব্যাজটা স্ক্যান করল। সঙ্গে সঙ্গে তার মোবাইলে ভেসে উঠলো দুর্ঘটনার শিকার ওই ছেলেটির নাম, পুরো পরিচয়, রক্তের গ্রুপ আর জরুরি মোবাইল নাম্বার।

আইফোন, এন্ড্রয়েড, ব্ল্যাকবেরি বা উইন্ডস অপারেটিং সিস্টেমের সব মোবাইলেই বার কোড রিডার ফ্রি ডাউনলোড করা যায়। হয়ে গেলো আপনার হাতে একটা স্ক্যানার।

এবার আসা যাক আর কিভাবে সাহায্য করতে পারেন জিনিয়াকে। ফেসবুকে জিনিয়ার জন্য খোলা ইভেন্টে যোগ দিতে পারেন। ইভেন্টের লিংক: https://www.facebook.com/events/406737976159367/

আরও তথ্য জানতে ঢুঁ মারতে পারেন এই গ্রুপটাতে। গ্রুপ লিঙ্ক https://www.facebook.com/groups/813881072020333/

বিকাশ নাম্বার আর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট তো আছেই। জিনিয়ার বড় ভাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন এই নাম্বারে ০১৭১৪৩৬১৭৮৯।

রক্ত দিতে চাইলে যেতে পারেন এই ঠিকানায়। হেমাটোলজি ইউনিট (ফ্লোর ১৪), ওয়ার্ড রুম নাম্বার ১৫১১। বেড নাম্বার এফপি (গ্রিন ৩), পিজি হাসপাতাল, ঢাকা।

আমাদের একটু ভালোবাসা পেলে জিনিয়া ফিরবেই। ওর জন্য শুভকামনা।

/এমপি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।