সন্ধ্যা ০৬:৩৯ ; রবিবার ;  ১৯ মে, ২০১৯  

যে কােনও দলের চাইতে ভারতের বােলিংয়ে ভিন্নতা বেশি

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

হাবিবুল বাশার॥

এ বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত আয়ারল্যান্ড ভালাে খেলেছে। তারা আগ্রাসী ব্যাটিং করলেও তাদের বোলিংটা বেশ দুর্বল। যার প্রমাণ অাজকেও দেখেছি। তাই ভালো কিছু করতে হলে ওদের একজন উইকেট নেয়ার ক্ষমতা সম্পন্ন বোলার দরকার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে অাইরিশরা একটি ম্যাচ জিতলেও সেটা অবশ্য ব্যাটিং নৈপুণ্য দেখিয়েই জিতেছে। ভারতের মতো দলকে তারা ২৬০ রানের টার্গেট দিয়েছে। কম কথা নয়। তারা উদ্বোধনী জুটিতে ১৫ ওভারে ৮৯ রান করে। এমন একটা উড়ন্ত সূচনা করলে যেকোনও দল ৩০০ রান পেরুতে পারে। যাই হোক শেষ পর্যন্ত ওরা ২৫৯ রানেই অাটকে ছিল।

এবার ভারেতর জন্য একটা সুবিধা হলো তাদের একটা ভারসাম্য রযেছে। যেদিন তাদের পেসাররা ভালো খেলে না ঐদিন তাদের স্পিনাররা ভালো করে। অশ্বিন ও জাদেজা খুব ভালো বোলিং করছে। বিশ্বকাপে যেকােনও দলের চাইতে ভারতের বােলিংয়ে ভিন্নতা বেশি। এমনকি এদিক থেকে অস্ট্রেলিয়া তাদের পেছনে রয়েছে। অসিদের বেশ কিছু ভালাে পেসার থাকলেও ভালাে স্পিনার নেই। তাই যেকােনও কন্ডিশনে ভারত বোলিং করতে সক্ষম। মনে হচ্ছে তারা বিশ্বকাপে অনেক দূরই যাবে।

হ্যামিলটনের ছোট মাঠে ভারতের জন্য ২৬০ বড় টার্গেট ছিল না। ভারতের উদ্বোধনী জুটির কারণে আয়ারল্যান্ড কখনোই খেলায় আর ফিরে আসতে পারেনি। আজ তারা ১৩ ওভার হাতে রেখেই জিতে গেছে। এটা দেখে বুঝাই যাচ্ছে ওদের ব্যাটিং স্তম্ভ কতটা শক্তিশালী। বিরাট, রাহানে, ধাওয়ান তাদের সব ব্যাটসম্যান ফর্মে আছে। শিখর ধাওয়ানের একটি ভালো দিক হলো সে যখন রান পেতে শুরু করে ম্যাচটা ওরা জিতে যায়। কারণ ধাওয়ান এতো দ্রুত রান করে যে দলকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়না। তাই আজ ধোনিকেও খেলতে হয়নি।

আইরিশদের জন্যে বলতে পারি সামনে ওদের ভাগ্য সুপ্রসন্ন নাও হতে পারে। কারণ মনে হচ্ছে পাকিস্তান পরের রাউন্ডে চলে যাবে। পাকিস্তান-আয়ারল্যান্ড ম্যাচ এখনও বাকি। পাকিস্তান যদি জিতে যায় আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ যদি আরব আমিরাতের সঙ্গে রান ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ কাজে লাগাতে পারে। তাহলে ভালো খেললেও বিদায় নিতে হতে পারে আয়ারল্যান্ডেকে।

/এনএস/এফআইআর/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।