বিকাল ০৫:৫৮ ; বৃহস্পতিবার ;  ২৩ মে, ২০১৯  

এবার সামনের দিকে চোখ রাখতে হবে: বুলবুল

প্রকাশিত:

মুসা ইব্রাহীম, অস্ট্রেলিয়া থেকে ॥

বাংলাদেশ এক অসাধারণ জয় পেয়েছে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। ১৯৯৭ সালে আইসিসি ট্রফি জিতে নিয়ে ১৯৯৯ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ লাভকারী বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের অধিনায়ক আমিনুল ইসলাম বুলবুল জানালেন, এই জয়টা বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের জন্য এক অবিস্মরণীয় জয়। ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপেই পাকিস্তানকে হারানোর সুখস্মৃতির কথা উল্লেখ করে আরও বলেন, 'পাকিস্তানকে হারানোর পর থেকেই আমরা বিশ্বাস করা শুরু করেছি যে বিশ্বের যেকোনো দলকেই আমরা হারাতে পারি।' এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের বর্তমানে কোচ হিসেবে কর্মরত এই সাবেক ক্রিকেটারের মতে, 'ইংল্যান্ডকে এই ম্যাচ আমাদের হারাতেই হতো। এটা ছিল অনেকটা সেমিফাইনালের মতো। কিন্তু পরিস্থিতি তো আমাদের অনুকূলে ছিল না। কারণ র‌্যাংকিংয়ে ইংল্যান্ড ছয় নম্বরে, আর বাংলাদেশ নয় নম্বরে থাকা দল। যদিও ইংল্যান্ড এবারের বিশ্বকাপে খুব বেশি ভালো করছিল না। সেটা একটা সুযোগ ছিল আমাদের জন্য। সেটাই আমরা কাজে লাগিয়েছি। তারপরও আমি বলবো যে বেশ কয়েকবার ধসে পড়ার উপক্রম বাংলাদেশ দলের জন্য তৈরি হয়েছিল। যেমন শুরুতেই দুই উইকেট পড়ে যাওয়া। এরপর বোলিংয়ের সময় শেষের কয়েকটা ওভার ঠিকঠাক মতো ব্যবহার করতে না পারা। তবে ভালো দিক হলো – আমরা একটা পরিণত দল হিসেবে এই সমস্যাগুলো উতরে গেছি। আর সে কারণেই কাঙ্ক্ষিত জয় আমরা পেয়েছি।'

বাংলাদেশের হয়ে ১৯৮৮ থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত ১৩টি টেস্ট ও ৩৯টি একদিনের ম্যাচ খেলা আমিনুল ইসলাম বুলবুল বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে পরিবারসহ বসবাস করছেন। গত ম্যাচ প্রসঙ্গে আলাপকালে তিনি জানালেন, 'বাংলাদেশের বর্তমান দলকে নিয়ে সবাই যেমন আশা করেছিলেন যে তারা আফগানিস্তান আর স্কটল্যান্ডকে হারাবে। আর বড় দলগুলোর যেকোনো একটাকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করবে। সেটা পূরণ হয়েছে। এখন আমাদের সামনের দিকে চোখ রাখতে হবে। এবার বাকি দলগুলোর সঙ্গে ভালো খেলে কিভাবে হারানো যেতে পারে, সেদিকে মনোনিবেশ করতে হবে।'

গত বছর বাংলাদেশ দল ভালো খেলতে পারেনি। শুধুমাত্র জিম্বাবুয়ের সঙ্গে সিরিজে খেলে জয়ের ধারায় ফেরা বাংলাদেশ দলের এবারের বিশ্বকাপের পারফরম্যান্সে খুশি দেশের হয়ে প্রথম টেস্টেই সেঞ্চুরি করা আমিনুল ইসলাম বুলবুল। তিনি মনে করেন, এবার বাংলাদেশের কোয়ার্টার ফাইনালেও জেতা সম্ভব। যদিও মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড–এমসিজি’র অভিজ্ঞতা বাংলাদেশের জন্য ভালো হয়নি। তারপরও টেকনিক্যাল দিক ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, এবারের বিশ্বকাপের সবগুলো পিচ যেহেতু আইসিসি নিজেই তৈরি করেছে এবং দেখভাল করছে, ফলে এবার প্রচুর রান হচ্ছে। বাংলাদেশ যদি তিনশ’র বেশি রান করতে পারে, তাহলে জেতার একটা সম্ভাবনা তৈরি হবে বলে তিনি মনে করেন। কারণ বাংলাদেশ ধীরে ধীরে বেশ পরিণত দল হিসেবে গড়ে উঠেছে।

এবারের বিশ্বকাপের সবগুলো দলের স্পিনারের মধ্যে আরাফাত সানি’র খেলা তাকে মুগ্ধ করেছে বলে তিনি জানান। তাকে বিশ্বকাপের একেবারে শুরু থেকে খেলানো উচিত ছিল বলে আমিনুল ইসলাম মন্তব্য করেন। আর বাংলাদেশের উদ্বোধনী জুটিতে এখন পর্যন্ত ভালো রান পাওয়া যাচ্ছে না – এ দিকটা নিয়ে কাজ করা উচিত বলে তিনি জানান। সেই সঙ্গে ইমরুল কায়েসকে ঢাকা থেকে উড়িয়ে এনেই ম্যাচ খেলতে নামিয়ে দেয়াটাকে তিনি ভুল বলে অভিহিত করে জানালেন, উদ্বোধনী জুটির রান না পাওয়ার সমস্যাটা সৌম্য অনেকটাই বুঝতে দিচ্ছে না। কিন্তু এটা সমাধান করা গেলে বাংলাদেশ দলে সাব্বির পর্যন্ত ভালো একটা ব্যাটিং লাইন আপ আছে বলে তিনি মনে করেন।

/টিএন/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।