বিকাল ০৪:৩০ ; মঙ্গলবার ;  ২৩ এপ্রিল, ২০১৯  

দক্ষিণ কোরিয়ায় বাংলাদেশি তারুণ্যের মেলা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

মোঃ আতিকুর রহমান॥

অনেকগুলো কোর্স ওয়ার্ক, সেমিনার, প্রেজেন্টেশন সম্পন্ন করে, গবেষণা ও গবেষণাপত্রের শর্ত পুরণ করে তবেই না মাস্টার্স/পিএইচডি নামক সোনার হরিণের দেখা মেলে । গত ১৪-১৫ ফেব্রুয়ারি এক বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে কোরিয়ায় হয়ে গেল উচ্চরত ডিগ্রিপ্রাপ্ত বাংলাদেশি তরুণদের সম্মাননা ও অষ্টম মিলনমেলা। দক্ষিণ-কোরিয়ায় অধ্যয়নরত ছাত্র/ছাত্রীদের সংগঠন “বাংলাদেশি স্টুডেন্টস’ অ্যাসোসিয়েশন ইন কোরিয়া” (বিএসএকে)। সংগঠনটি সূচনালগ্ন থেকেই বছরে দুটি করে মিলনমেলা ও উচ্চশিক্ষায় ডিগ্রিপ্রাপ্তদের জন্য সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান করে আসছে। এবারের আয়োজনটি অনুষ্ঠিত হয়েছে দক্ষিণ-কোরিয়ার ষষ্ঠ বৃহত্তম শহর গোয়াংজুতে।

উক্ত মিলনমেলায় প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ কোরিয়াস্থা বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত (চার্জ অফ দ্যা অ্যাফেয়ার্স) খন্দকার মাসুদুল আলম, এছাড়াও ফাস্ট সেক্রেটারি (শ্রম) মোঃ জাহিদুল ইসলাম ভুঁইয়া, বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন কোরিয়ার (বিসিকে) সভাপতি আবুবক্কর সিদ্দিক রানা, চননাম ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির এমিরিটাস প্রফেসর সিন গং গু, প্রফেসর ও জে ইল, ইউনিভার্সাল কালচারাল ক্লাবের ডিরেক্টর সিউল গয়ান এবং সোসাল একটিভিস্ট লক্ষি ডি। বক্তারা নতুন ডিগ্রিপ্রাপ্তদের অভিনন্দন জানান এবং বিএসএকে-এর প্রশংসনীয় কার্যক্রম নিয়ে নিজ নিজ বক্তব্য তুলে ধরেন এবং পরিশেষে ডিগ্রিপ্রাপ্তদেরকে সনদপত্র ও ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।

এবারের মিলনমেলায় সনদপত্র ও ক্রেস্ট প্রদান, ই-বুক উন্মোচন ছাড়াও অতিথিদের কাছে অন্যতম আকর্ষণ ছিল মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা। মেলায় আমন্ত্রিত শিক্ষার্থীদের নাচ,গান,অতিথিদের প্রবাসী জীবনের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র মজার অভিজ্ঞতা, রাতে একসঙ্গে দেশি খাবার খাওয়া- এ যেন বিদেশের মাটিতে নিজের দেশকে কিছু সময়ের জন্য ফিরে পাওয়া। সবাই ব্যস্ত থাকার পরও এই অনুষ্ঠানে আসতে পেরে, সামান্যতম সময়ের জন্য বাংলাদেশিদের সঙ্গে মিশতে পেরে অনেকে আনন্দ প্রকাশ করেছেন।

বিএসেকে কর্তৃপক্ষের দেওয়া তথ্যমতে গত সেমিস্টারে সর্বমোট ২৯ জন বাংলাদেশী শিক্ষার্থী (১৪ জন পিএইচডি, ১৪ জন মাস্টার্স এবং ১ জন আন্ডারগ্র্যাজুয়েট) কোরিয়ার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রি লাভ করেছেন। তাদেরকে বিএসেকের পক্ষ থেকে সনদপত্র প্রদান করা হয়, এছাড়া নতুন সেমিস্টারে বাংলাদেশের প্রায় ৩৫ (১৯ জন পিএইচডি এবং ১৬ জন মাস্টার্স প্রোগ্রাম) জন শিক্ষার্থী কোরিয়ার বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চ শিক্ষার জন্য জন্য ভর্তি হয়েছেন।

/এফএএন/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।