রাত ০৩:৪৫ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৭ অক্টোবর, ২০১৯  

৪০-৫০ রান বেশি হলে ভাগ্য গেইলদের দিকেই হাসতো

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

হাবিবুল বাশার ।।

লো স্কোরিং ম্যাচ প্রতিনিয়ত কিভাবে রং পাল্টায় আজকে সেটাই দেখতে পেলাম। আমরা জানি, পার্থের উইকেট সব সময় গতি এবং বাউন্সের জন্যে খুবই সুপরিচিত। তবে মনে হচ্ছে ইদানিং সেই উইকেটের আচরণে কিছুটা পরিবর্তন এসেছে। আগের মতো বাউন্স ও গতির মিশেল দেখা মিলছে না।

উইকেটের আচরণ দেখেই বলবো আমার মনে হয়েছে টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্যারিবীয় অধিনায়ক জেসন হোল্ডার হয়তো ভুলই করেছেন। কারণ, সকালে উইকেটে যত গতি, বাউন্স এবং সুইং দেখেছি। ধীরে ধীরে উইকেটে সেগুলোর মাত্রা কমে আসতে দেখা গেছে। আর ওদের বোলিং অ্যাটাক কিন্তু খুবই ভালো ছিল। হয়তো ফিল্ডিং নিলে ওরা কিছুটা সহায়তা পেতে পারতো।  

আজকে কিন্তু ওদের ব্যাটিং দেখে খুবই হতাশ হয়েছি। ওদের ব্যাটিং লাইন আপ অনভিজ্ঞ হওয়ায় ক্রিজে থিতু হওয়ার মতো কাউকে দেখছি না। লম্বা ইনিংস খেলার মতো কেউ নেই। বিশেষ করে ক্রিস গেইল আউট হলে পরে ওদের ইনিংস টেনে নেওয়ার মতো কাউকে দেখা যাচ্ছে না। ম্যাচে আজকে মনে হয়েছে মারলন স্যামুয়েলসের রান আউট কিছুটা হলেও গেইলকে প্রভাবিত করেছে। ক্রিকেট আসলে এমনই। তবে গেইলের ওই মুহূর্তে মারমুখী হয়ে খেলা ঠিক হয়নি। গেইল যদি বেশিক্ষণ ক্রিজে থিতু হতো তাহলেও হয়তো বিধ্বংসী কিছু দেখতে পারতাম। যা আগেও দেখেছি। ম্যাচের শেষে এটাই মনে হয়েছে জেসন হোল্ডারের দল যদি আর ৪০-৫০ রান বেশি করতো তাহলে ভাগ্য ওদের দিকেই হাসতো।

ভারতের ব্যাটিং নিয়ে বলবো ওদের এই উইকেটে ভালো একটি পরীক্ষা হয়ে গেলো। ওদের ব্যাটসম্যানরা আজ সেভাবে জ্বলে উঠতে পারেনি। বলতে গেলে মহেন্দ্র সিং ধোনির দায়িত্বশীল ইনিংসটাই ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিয়েছে। সবশেষে এটাই বলবো লো স্কোরিং ম্যাচটি উপভোগ করেছি।  

/এফআইআর/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।