দুপুর ০৩:২৯ ; সোমবার ;  ২০ মে, ২০১৯  

ভারতের কাছে হেরেই প্রোটিয়ারা শিক্ষা নিয়েছে

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

হাবিবুল বাশার॥

একদিনের ক্রিকেটে চারশ' রান করার অভিজ্ঞতা খুব বেশি দলের নেই। তবে দলটি যখন দক্ষিণ আফ্রিকা তখন  কাজটা পানির মতোই সহজ মনে হচ্ছে। টানা দুই ম্যাচে তারা চারশ' রান করলো। পরবর্তী ম্যাচেও যদি চারশ' রান হয় অবাক হব না।

বিশ্বকাপের প্রথম খেলায় ভারতের সঙ্গে হেরে যাওয়াতে হতাশ হয়েছিলাম। মনে হয়েছিল, এবারও যদি তারা শিরোপা নিতে ব্যর্থ হয় তাহলে পরবর্তীতে তাদের জন্য কাজটা সহজ হবে না। এবারের প্রোটিয়া দলটি ভারসাম্যপূর্ণ, বিশেষ করে ব্যাটিংয়ে। আজও ওরা নিখুঁত পরিকল্পনামাফিক ব্যাটিং করেছে।

শুরুতে হোঁচট খেলেও এরপর হাশিম আমলা হাল ধরেন। শুধু উইকেট আঁকড়ে থাকেননি রান রেটও বাড়িয়েছেন। তার গড়া ব্যাটিং স্তম্ভ পরবর্তীতে এবি, মিলার ও রুশোকে এগিয়ে নিতে সহায়তা করেছে। তাদের এমন ব্যাটিং স্তম্ভকে ধসিয়ে দেওয়া যে কারও জন্যই কষ্টসাধ্য ব্যাপার।

যদিও আয়ারল্যান্ডের বোলিং লাইন অতটা ভালো নয়। তারা শুধু লাইন এবং লেংন্থ ধরে রেখে বল করেন। সত্যি বলতে প্রোটিয়াদের বিশাল রানের পাহাড়ই খেলার ফলাফল নির্ধারণ করে দিয়েছিল।

আমার মনে হয় দক্ষিণ আফ্রিকা ভারতের সঙ্গে হেরেই ভালো শিক্ষা নিয়েছে। সেখান থেকেই আইরিশদের পাল্টা শিক্ষা দিয়ে রাখল তারা।

হাশিম আমলার ব্যাটিং নিয়ে বিশেষ করে কিছু বলতে চাই। মার-মার-কাট-কাট ব্যাটিং বলতে আমরা গেইল, ভিলিয়ার্স, মিলার ও রুশোকে দেখেছি। তবে আমলা কিন্তু কখনোই ধীর গতির ব্যাটসম্যান নয়। তার প্লেসমেন্ট ও টাইমিং এতো ভালো যে তাকে আসলে জোর খাটাতে হয় না। তাই তাকে থামানো প্রতিপক্ষের জন্য মুশকিলের ব্যাপার। তার গত কয়েক ম্যাচের পরিসংখ্যান দেখলেই বোঝা যায়, কেন প্রতিপক্ষ তাকে সমীহ করে।

ভিলিয়ার্স দলের পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলছে। ডি কক আজ রান না পেলেও চিন্তার কিছু নেই। সে দারুণ ব্যাটসম্যান। প্রোটিয়াদের জন্য সবচেয়ে সুসংবাদ তাদের টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা রান পাচ্ছে।

রানের পাহাড়া তাড়া করতে গিয়ে প্রথমেই স্টেইন এবং অ্যাবোটের ধাক্কাটা সামলে নেওয়া আইরিশদের পক্ষে সহজ ছিল না। যদিও এর আগের খেলাগুলোতে স্টেইন ভালো কিছু দেখাতে পারছিলো না। তবে আজ সুইং বল করে ব্রেক-থ্রু এনে দিয়ে ছন্দে ফিরে এসেছে। সঙ্গে মরকেল কম রানে কয়েকটি উইকেট তুলে নিয়ে জয়ের পথ সুগম করে দিয়েছে। তবে আমার মতে সে শর্ট লেংন্থ বল বেশি করছে। এমনটি পরবর্তী খেলায় তার জন্য ভালো নাও হতে পারে। এছাড়া প্রোটিয়াদের ফিল্ডিং সব সময়ের মতোই উপভোগ্য ছিল।    

/এনএস/এফআইআর/এএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।