বিকাল ০৪:২৬ ; সোমবার ;  ১৪ অক্টোবর, ২০১৯  

শ্মশ্রুভারি বদন

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

লাইফস্টাইল ডেস্ক॥

ধর্মীয় অনুশাসন তো বটেই ফ্যাশনের প্যাশনেও মুখের দাড়ি পুরুষের মনোযোগের শীর্ষে। রূপ বদলাতে তাই কেটে বা ছেঁটে বদনের বহুরূপ ফুটিয়ে তুলতে তৎপর গোটা পুরুষজাতি। সেটা চাপদাড়ি হোক কিংবা ফ্রেঞ্চ কাট-ই হোক।

হেয়ারস্টাইলের মতো দিনে দিনে পরিবর্তন ঘটে দাড়ির স্টাইলে। ব্যক্তিত্বের খাতিরে মুখের আকৃতি ও দাড়ির প্রকৃতি অনুযায়ী প্রত্যেকেই স্বতন্ত্র স্টাইল করতে সদা প্রস্তুত। তবে দাড়ি রাখলেই হবে না, এর জন্য চাই বাড়তি যত্ন।

চুলের যত্নে প্রতিদিন যেমন ব্যয় করতে হয় অনেকটুকু সময়, তেমনি মনোযোগ দিতে হবে দাড়ির ক্ষেত্রেও। প্রত্যেকের দাড়ির ধরন এক নয়। কারো দাড়ি পাতলা, কারো ঘন। যাদের দাড়ি ঘন, তাদের এর বিশেষ যত্ন নিতে হবে।

অধিকাংশ মানুষই গোসল করার সময় যে সাবান বা শ্যাম্পু ব্যবহার করেন, তা দিয়েই দাড়ি পরিষ্কার করেন। এতে শুধু দাড়িই নয়, শুষ্ক হয়ে যায় মুখের ত্বকও। তাই ব্যবহার করুন দাড়ির জন্য আলাদা ময়েশ্চারাইজিং শ্যাম্পু ও কন্ডিশনার। সপ্তাহে অন্তত একবার। আবার যাদের দাড়ি তুলনামূলক বেশি রুক্ষ, তাদের সপ্তাহে দুবার কন্ডিশনার ব্যবহার করা জরুরি।

যারা নতুন দাড়ি রাখবেন বলে মনস্থির করেছেন তাদের একটা বিষয় জেনে রাখা ভালো। ত্বকের মৃত কোষ প্রায়ই দাড়ির গোড়ায় জমে যায়। এক্ষেত্রে ডিপ স্ক্রাবিং অবশ্যই প্রয়োজন। দাড়ি খুব ভালো করে পানি দিয়ে ধুতে হবে। প্রয়োজনে মাথা হেলিয়ে বিভিন্ন অ্যাঙ্গেল থেকে পানি দিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন কোথাও সাবান বা শ্যাম্পুর ফেনা জমে না থাকে। দাড়ির গোড়ায় বেশিদিন ফেনা জমতে দিলে চুলকানি হয়।

দাড়িতে ইচ্ছেমত শেপ দিতে চাইলে প্রথমে বাড়তে দিতে হবে। তবে অযত্নে ফেলে রাখলে চলবে না। নিয়মিত ট্রিম করুন। ধীরে ধীরে বাড়তে দিন। সেক্ষেত্রে কাঁচি বা বৈদ্যুতিক রেজর কোনওটাতেই বাধা নেই। সুবিধা ও স্বাচ্ছন্দ্য অনুযায়ী ছেঁটে দাড়িকে সুযোগ করে দিন বেড়ে উঠতে।

সুন্দর দাড়ির পেছনে স্বাস্থ্যকর খাবার ও ঘুমের অবদান আছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন। বায়োটিন ও ভিটামিন বি কমপ্লেক্স চুলের গোড়া শক্ত করে। গবেষণায় দেখা যায়, নিদ্রাহীনতায় দাড়ির বৃদ্ধি হ্রাস পেতে পারে। সুতরাং দাড়ির খাতিরে হলেও যত্ন নিন ঘুমের।

আদর যত্ন পেয়ে দাড়ি যদি বেড়ে ওঠে তবে নিয়মিত চিরুনি দিয়ে আঁচড়াতে হবে। দাড়ির শেপ ঠিক রাখতে এটা জরুরি। অন্যথায় দাড়িতে জট পাকিয়ে গেলে সেটা অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

মডেল: আরিফিন খান 

ছবি: সাজ্জাদ হোসেন 

/এএলএ/এমপি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।