সকাল ১০:১৪ ; শনিবার ;  ২১ জুলাই, ২০১৮  

ক্ষেতেই পচছে কৃষকের সবজি

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

যশোর প্রতিনিধি॥

দেশের বৃহত্তম সবজি উৎপাদন জোন যশোর। দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে সবজি যশোরের বাইরে পাঠাতে না পারায় ক্ষেতেই বিনষ্ট হচ্ছে তা। এতে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন কৃষকরা। সবজি চাষী, পাইকার ও হাট সংশ্লিষ্টরা এ তথ্য জানান।

সাতমাইল এলাকার কৃষক আব্দুস সাত্তার বলেন, 'এত কম দামে সবজি না বিক্রি করে আমরা তা ভূঁইতে (জমি) ভেঙে দিচ্ছি। কেউ কেউ তা গরু-ছাগল দিয়ে খাওয়াচ্ছে।'

গত সপ্তাহে যশোরের বারীনগর বাজার এবং বিজয়নগর, চুড়ামনকাটি, হৈবতপুর, নওদাগ্রাম, নূরপুর এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, মাঠে নষ্ট হচ্ছে প্রচুর কপি। চাষীরা ফুলকপি-বাঁধাকপি হাটে না নিয়ে গবাদিপশুকে খাওয়াচ্ছে।

এদিকে, যশোর শহরের খুচরা বাজারগুলোতে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, পাইকারি বাজারের চেয়ে এখানে সবজির দাম গড়ে ২-৩ টাকা করে বেশি। তবে, রাজধানীসহ দূরবর্তী শহর-নগরে কাঁচামাল পাঠানোয় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে। যশোর থেকে ওই সব অঞ্চলে সবজি রফতানি একেবারেই কমে গেছে বলে জানান খাজুরা বাজারের ইজারাদার রোস্তম আলী।

তিনি বলেন, বর্তমান অস্থির পরিস্থিতিতে ট্রাক মালিক ও চালকরা নির্বিঘ্নে গাড়ি চালাতে পারছে না। ঝুঁকি নিয়ে অল্পকিছু ট্রাক সবজি পরিবহনের কাজে নিয়োজিত রয়েছে। তারা পরিবহন ভাড়া হাঁকছে ইচ্ছামতো।

বারীনগর বাজারের ইজারাদার ফরিদুল ইসলাম বলেন, আগে ঢাকায় প্রতি ট্রাকে ৮ থেকে ৯ হাজার টাকা এবং চট্টগ্রামে ২০ হাজার টাকা ভাড়া দেওয়া লাগতো। এখন তার দ্বিগুণেরও বেশি ভাড়া হাঁকছে ড্রাইভাররা।

তিনি বলেন, মৌসুমে এ বাজার থেকে প্রতিদিন ২৫ থেকে ৩০ ট্রাক সবজি যশোরের বাইরে পাঠানো হতো। এখন কমে তা ২ থেকে তিন ট্রাকে দাড়িয়েছে। বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ২ লাখ টাকার ক্ষতি হচ্ছে বলে তিনি জানান। এক প্রশ্নের জবাবে ফরিদুল ইসলাম বলেন, বারীনগর মোকামে প্রায় ৫ হাজার মানুষ সবজি বিপণনের সঙ্গে সম্পৃক্ত। তারা গড়ে প্রতিদিন এই মোকাম থেকে পাঁচশ’ টাকা উপার্জন করতো। কিন্তু, হরতাল-অবরোধের কারণে যশোর থেকে সবজির গাড়ি ঢাকা-চট্টগ্রাম না যাওয়ায় তাদের সে উপার্জন বন্ধ হয়ে গেছে। ট্রাকচালক রাজ্জাক আলী জানান, রাস্তায় গাড়ি বের করা চরম ঝুঁকিপূর্ণ। সে কারণে ট্রাক ভাড়া বাড়ানো হয়েছে।

তবে গত দুদিনে সবজির দাম সামান্য বেড়েছে। গত সপ্তাহে যেখানে বাঁধাকপি-ফুলকপির দাম ৪-৫ টাকা ছিল, এখন তা ৫ থেকে ১০ টাকায় দাঁড়িয়েছে। শনিবার যশোরের অন্যতম প্রধান সবজির মোকাম বারীনগর, খাজুরা ও পুলেরহাটে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, টমেটো ১৮-২০ টাকা, বেগুন ১৩-১৪, শিম ১০-১২, বাঁধাকপি ৪-৫, ফুলকপি ৮-১০, লাল শাক ও সবুজ শাক ৮-৯, পালং শাক ৩-৪ টাকা কেজি দরে বেচাকেনা হচ্ছে। গত সপ্তাহে এই সবজিগুলোর দাম ছিল আরও কম।

/এমআর/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।