ভোর ০৬:০৬ ; মঙ্গলবার ;  ১৯ নভেম্বর, ২০১৯  

খুলনায় হরতালের প্রথম দিনে বিক্ষিপ্ত ঘটনা, আটক ৬০

প্রকাশিত:

খুলনা প্রতিনিধি॥

মিছিল-সমাবেশ, পিকেটিং এবং পুলিশের সঙ্গে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ ও গুলি-টিয়ার শেল নিক্ষেপের মধ্যে দিয়ে বুধবার খুলনায় ২০ দলীয় জোটের ডাকে ৪৮ ঘণ্টা হরতালের প্রথম দিন অতিবাহিত হয়েছে।

এদিন দূরপাল্লা ও স্বল্প পাল্লার যানবাহন চলাচল ছিল বন্ধ। স্কুল-কলেজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাস হয়নি। অফিস-আদালতে কাজ কর্মে ছিল স্থবিরতা। ব্যাংক-বীমায় তালা ঝুলতে দেখা গেছে। দোকান-পাট ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছিল বন্ধ। মহানগরী এবং দৌলতপুরে ২০ দলের মিছিলে বাধা দেয়াকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে পিকেটারদের সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ ৩ রাউন্ড টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে। পৃথক অভিযানে ৬০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলায় রাতভর অভিযান চালিয়েছে পুলিশ।

বুধবার সকাল ৮টার দিকে দৌলতপুর থানার মহসিন মোড় থেকে জোটের নেতাকর্মীরা মিছিল বের করার উদ্যোগ নেয়। এসময় থানা পুলিশ লাঠিচার্জ করে মিছিলকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এরপর বিক্ষুব্ধ কর্মীরা খুলনা-যশোর মহাসড়কের দৌলতপুর বাজার সংলগ্ন এলাকায় একটি ট্রাক, কয়েকটি ব্যাটারি চালিত ইজি বাইক ভাঙচুর করে।

এদিকে, সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ছাত্রদলের কর্মীরা খানজাহান আলী রোডের মৌলভীপাড়ার মোড় এলাকায় পিকেটিং এবং মিছিল বের করে। এসময় পিকেটাররা ২টি ইজিবাইক ভাঙচুর শুরু করলে পুলিশ বাধা দেয়। এতে সংঘর্ষ শুরু হয় দুপক্ষে। হরতাল সমর্থকরা পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। পুলিশও লাঠিচার্জ করে। ধাওয়া, পাল্টা ধাওয়ার একপর্যায়ে পিকেটাররা পুলিশকে লক্ষ্য করে ৫টি ককটেল নিক্ষেপ করে।

পিকেটারদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ ৩ রাউন্ড টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে। এছাড়া পিটিআই মোড় এলাকায় পুলিশের সঙ্গে হরতাল সর্মথকদের সংঘর্ষ হয়।

একইসঙ্গে হরতালের বিপক্ষে আওয়ামী লীগ মহানগরীতে মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

মহানগর বিএনপির প্রথম যুগ্ম সম্পাদক অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম বলেন, 'পুলিশ দৌলতপুর থেকে ছাত্রদল নেতা তরিকুল ইসলাম, এলিন হাওলাদার, শাহারুল এবং ছাত্রশিবির নেতা ফারুক আকন ও মাসুম বিল্লাহকে আটক করে।'

খুলনা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকুমার দত্ত বলেন, 'সকালে মৌলভীপাড়া এলাকায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৩ রাউন্ড টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে। এসময় ২ পিকেটারকে আটক করা হয়।'

এর আগে গত মঙ্গলবার রাতে পুলিশ মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে কৃষক দল খুলনা জেলা শাখার সভাপতি নূরুল হুদা খান বাবু, ইজিবাইক শ্রমিক দলের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মানিকসহ ২০ জনকে আটক করে। এছাড়া রূপসা উপজেলা থেকে ৫ জন, তেরখাদা উপজেলা থেকে ২ জন, পাইকগাছা উপজেলা থেকে ৩ জন ও দিঘলিয়া উপজেলা থেকে বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের ২৫ নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ।

অপরদিকে, একই রাতে শিববাড়ী, ডালমিল, পিটিআই মোড়সহ বিভিন্ন এলাকায় ককটেল বিস্ফোরিত হয়।দৌলতপুরে ২টি ইজিবাইক ভাঙচুর করা হয়।

/জেবি/একে/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।