রাত ০১:৫৯ ; রবিবার ;  ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০  

সংলাপের দাবি হেফাজত ও চরমোনাই পীরের

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

বাংলাদেশে চলমান ‘রাজনৈতিক সংকট’ নিরসনে দলগুলোকে সংলাপে বসার আহ্বান জানিয়েছে ধর্মভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম এবং ধর্মভিত্তিক দল ইসলামী অান্দোলনের অামির মাওলানা রেজাউল করিম।

মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনটি বলেছে, রাজনৈতিক দলগুলো যেহেতু মানুষ ও দেশের স্বার্থে রাজনীতি করছে, তাই তাদের উচিত হানাহানি বন্ধ করে আলোচনায় বসে সংকট সমাধানের পথ খোঁজা। আলোচনায় বসার প্রশ্নে কোনও ধরনের শর্ত আরোপ এবং সময় নষ্ট করার সুযোগ নেই।

হাটহাজারীর কওমি মাদ্রাসভিত্তিক এ সংগঠনটির কেন্দ্রীয় আমির শাহ আহমদ শফী ছাড়াও মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী এবং নায়েবে আমির মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী ও নূর হোসাইন কাসেমীসহ শীর্ষ নেতাদের নাম রয়েছে এ বিবৃতিতে।

আমিরের প্রেস সচিব মাওলানা মুনির আহমদ স্বাক্ষরিত এই বিবৃতিতে দেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ ও হতাশা প্রকাশ করে বলা হয়েছে, একটি ‘অরাজনৈতিক সংগঠন’ হিসেবে হেফাজতে ইসলাম কোনওভাবেই দেশে দমন-পীড়ন ও জ্বালাও-পোড়াও চায় না, শান্তি চায়।

এদিকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো এক খোলা চিঠিতে ইসলামী অান্দোলনের অামির মাওলানা রেজাউল করিম চরমোনাই পীর বলেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সম্পূর্ণ একতরফাভাবে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনী পাসের মাধ্যমে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ব্যবস্থা বাতিলের ফলে দেশে নতুনভাবে রাজনৈতিক সংকটের সূচনা হয়েছে ।

তিনি অারও বলেন, যার পরিণতিতে গত বছরের ৫ জানুয়ারি দলীয় সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচন দেশের অধিকাংশ রাজনৈতিক দল বর্জন করেছে, যে নির্বাচনে ১৫৪ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। যে নির্বাচন জাতীয় এবং আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্যতা পায়নি।

রেজাউল করিম বলেন, দেশবাসীর প্রত্যাশা ছিল নিয়মরক্ষার একটি নির্বাচনের পর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ অতি দ্রুত একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির জন্য আলোচনা শুরু করবে। কিন্তু আমরা অবাক বিস্ময়ে লক্ষ্য করলাম, ক্ষমতাসীনরা সংলাপ এবং সমঝোতার পথে না গিয়ে শক্তি প্রয়োগের মাধ্যমে প্রতিপক্ষকে দমন করতে গিয়ে পরিস্থিতিকে আরও জটিলতর করে তুলেছে।

/এসটি এস/এএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।