রাত ০৫:৩১ ; মঙ্গলবার ;  ১৯ নভেম্বর, ২০১৯  

'কত মানুষের মুখ দেখি, পুতের মুখ তো দেখি না'

প্রকাশিত:

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি॥

'কত মানুষের মুখ দেখি, আমার পুতের মুখ তো দেখি না, আমার পুতেরে তোমরা আইনা দেও বাবা' এভাবে বিলাপ করে কাঁদছেন গাজীপুরে বাসে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপের ঘটনায় নিহত তফাজ্জ্বল হোসেনের মা মরিয়ম বেগম।

গাজীপুরে বুধবার রাত আড়াইটার দিকে দেওয়া আগুনে বাসে ঘুমন্ত অবস্থায় নিহত তফাজ্জলের গ্রামের বাড়িতে এখন চলছে শোকের মাতম। শোকে স্তদ্ধ তার স্বজনসহ এলাকাবাসী। মর্মান্তিক এ ঘটনার বিচার দাবি করেছেন তারা।

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়নের কান্দাপাড়া গ্রামের ছেলে তফাজ্জল। ভূমিহীন কৃষক ওয়াহেদ আলী ও মরিয়ম বেগম দম্পতির চার সন্তানের মধ্যে তফাজ্জ্বল ছিল দ্বিতীয়। বড় মেয়ে আমেনা খাতুন গাজীপুরের কালিয়াকৈর এলাকায় স্বামীর সঙ্গে থাকেন। তাদের সঙ্গে থাকতো তফাজ্জল।

তফাজ্জল পাঁচ বছর আগে জীবিকার তাগিদে ঢাকামুখী হয়। এরপর একপর্যায়ে গাজীপুরের কালিয়াকৈর এলাকায় বড় বোনের বাসায় থেকে বাসের হেলপারি করে গ্রামের বাড়িতে টাকা পাঠাতো। সেই টাকায় তার ভাই-বোনের লেখাপড়া ও সংসার চলতো। রাজনৈতিক সহিংসতার বলিতফাজ্জলের লাশ নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তার বড়বোন গাজীপুর থেকে রওনা দিয়েছেন। আর ওদিকে বাড়িতে তফাজ্জলের মা কাঁদতে কাঁদতে বারবার মূর্ছা যাচ্ছেন।

তফাজ্জলের বাবা ওয়াহেদ আলী বলেন, 'ছেলের টাকায় পুরো পরিবার চলতো। সে গত পাঁচ বছর ধরে পরিবার চালাচ্ছে। আজ ভোরে তার মৃত্যুর খবর শুনে আমার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে। বসত ভিটে ছাড়া আর কোনও সহায় সম্বল নেই আমার। তফাজ্জলই ছিল আমার বড় সম্পদ।'

নিহতের বোন নারায়ণতলা মিশন উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী কুলসুমা আক্তার বলে, 'ভাইজান আমাদের লেখাপড়ার সব খরচ দিতেন। তিনি চাইতেন আমরা লেখাপড়া করি। এখন লেখাপড়া বন্ধ হয়ে যাবে।'

একই গ্রামের হাছান আলী বলেন, 'ঈদের চাঁনদে বাড়িতে আসতো তফাজ্জল। সে খুব মিশুক প্রকৃতির ছেলে ছিল।'

জেলাপ্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম জানান, সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন তার পরিবারকে প্রয়োজনীয় সাহায্য দিতে প্রস্তুত। নিহতের পরিবার চাইলে তাদের সহযোগিতা করা হবে।

তফাজ্জলের লাশ বাড়িতে পৌঁছালে স্থানীয় ফেনিবিল গোরস্থানে তাকে দাফন করা হবে বলে জানান তার স্বজনরা।

/জেবি/একে/


 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।