সকাল ১০:৫৯ ; মঙ্গলবার ;  ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯  

ডিজেলে সালফার কমাবে সরকার

প্রকাশিত:

আবু বকর সিদ্দিক॥

বায়ুদূষণ, স্বাস্থ্যঝুঁকি ও কার্বন নির্গমণ কমাতে, কম মাত্রার সালফারযুক্ত ডিজেল ব্যবহারকে উৎসাহিত করতে চায় সরকার। এই লক্ষ্যে উচ্চমাত্রার সালফারযুক্ত জ্বালানি ব্যবহার নিরুৎসাহিত করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

পরিকল্পনার খসড়া অনুযায়ী, ২০১৬ সাল থেকে ৫০০ পিপিএম-এর বেশি সালফারযুক্ত ডিজেল আমদানি নিষিদ্ধ করা হবে। উপরন্তু, আমদানিকৃত ডিজেল কোনও রকম মিশ্রণ ছাড়াই বিতরণ প্রক্রিয়ায় যাবে।

কম সালফারযুক্ত ডিজেল ব্যবহারের সঙ্গে সঙ্গে যানবাহনগুলোতে দূষণ নিয়ন্ত্রণ যন্ত্র (ইমিশন কন্ট্রোল ডিভাইস) ব্যবহার করারও পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

এই দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ২০২০ সাল থেকে ৩৫০ পিপিএম এবং ২০২৩ সাল থেকে ৫০ পিপিএম হারের সালফারযুক্ত ডিজেল আমদানি নিশ্চিত করা হবে।

বুধবার রাজধানীতে দূষণমুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করতে বন বিভাগে, পরিবেশ বিভাগ ও ক্লিন এয়ার এশিয়ার যৌথ উদ্যোগে 'রিডিউসিং ব্ল্যাক কার্বন ফ্রম হেভি ডিউটি ডিজেল ভেহিক্যাল অ্যান্ড ইঞ্জিন' শীর্ষক বৈঠকে এই পরিকল্পনার তৃতীয় খসড়া নিয়ে আলোচনা হয়।

এখন বাংলাদেশে ব্যবহৃত ডিজেলে সালফারের হার ২৫০০ পিপিএম। ডিজেলচালিত যানবাহনের পরিবেশ দূষণের অন্যতম প্রধান কারণ এটি।

বাংলাদেশে এক বছরে ডিজেলের চাহিদা ৩০ লাখ টন। এর ১৫ শতাংশ উৎপাদন করে ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেড ও বাকি ৮৫ শতাংশ আমদানি করা হয়।

বাংলাদেশে উৎপাদিত ডিজেলে সালফারের হার থাকে ৫০০০ পিপিএম, বাইরে থেকে আমদানিকৃত ডিজেলে ২০০০ পিপিএম। এই দুই ধরনের মিশ্রণে দেশে ব্যবহৃত ডিজেলে সালফারের হার দাঁড়ায় ২৫০০ পিপিএম-এ।

প্রকল্প প্রধান কাজী সারওয়ার ইমতিয়াজ হাশমী বলেন, 'ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার যানবাহনগুলোতে ব্যবহৃত ডিজেলে সালফারের উচ্চহারই পরিবেশ দূষণের মূল কারণ। এই সালফারের পরিমাণ কমিয়ে আনলেই নগরীর বাতাস দূষণমুক্ত হতে পারে।'

গবেষকদের মতে, সালফারঘটিত কিছু যৌগ মানবদেহের জন্য, বিশেষত শিশুদের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। সালফার-ডাই- অক্সাইড তেমনই একটি গ্যাস।

২০১২ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ডিজেল দূষণ থেকে ক্যান্সারের মতো দুরারোগ্য ব্যাধি হতে পারে। এসিড বৃষ্টির মতো দুর্যোগও ঘটতে পারে এই দূষণ থেকে।

বক্তারা আরও বলেন, ডিজেলে সালফারের হার কমিয়ে আনা একটি চলমান প্রক্রিয়া। ডিজেলচালিত যানবাহনগুলোকেও অল্প সালফারযুক্ত ডিজেলে চলার উপযুক্ত করে তুলতে হবে।

আলোচনায় ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেড অল্প সালফারযুক্ত ডিজেল ও জ্বালানি তেল বিশুদ্ধকরণ প্রকল্পের প্রস্তাব দেয়।


 

/ইউআর/এফএ

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।