সকাল ০৯:৫৬ ; রবিবার ;  ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯  

মিলেনিয়াম ইউনিভার্সিটিতে ‘নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ’ শীর্ষক সেমিনার

প্রকাশিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

‘নারী প্রতি সহিংসতা রোধে আইনের শাসন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। রক্ষক ভক্ষকের ভূমিকায় গেলে তো আর অধিকার রক্ষা হবে না। তাই সর্বস্তরে সচেতনতা দরকার।’

১০ ডিসেম্বর রাজধানীর মিলেনিয়াম ইউনিভার্সিটিতে ‘নারীর প্রতি সহিংসতাকে না বলুন’ শীর্ষক এক সেমিনারে এ কথা বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর আবু আইয়ুব মোহাম্মদ বাকের। জাতিসংঘের নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ে ১৬ দিনের প্রচারণা পালনের শেষ দিনে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়। সেমিনারে অংশগ্রহণকারীরা কমলা রঙের ব্যাজ পরে জাতিসংঘের ‘অরেঞ্জ ইভেন্ট’কে সমর্থন জানান।

নারীর প্রতি সহিংসতার বিভিন্ন উদাহরণ তুলে ধরে শিক্ষার্থীদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন অধ্যাপক নাজমুন্নেসা মাহতাব। তিনি নিজের জীবনের উদাহরণ বলেন, ‘আমাকেও নারী হিসেবে বঞ্চনা সহ্য করতে হয়েছে। মেয়ে শিশুকে এখনও সাদরে গ্রহণ করা হয় না। সুতরাং পরিবার থেকেই প্রথম শিক্ষা নিতে হবে এবং তা অন্যের প্রতি প্রয়োগ করতে হবে।’

সমাপনী বক্তব্যে ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টি’র চেয়ারপারসন বলেন, ‘আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছিলাম সমাজে বৈষম্য দূর করা, বিশেষ করে নারী উন্নয়ন ও নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে যুব সমাজকে সচেতন করে তোলার লক্ষ্যে। আজকের এই সেমিনারের মাধ্যমে আমাদের শিক্ষার্থীরা আরও বেশি সচেতন হতে পারবে বলে আমি মনে করি।’ নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে নারী-পুরুষ উভয়কে সচেতন হতে বলেন তিনি।

নারী নির্যাতন ও তা প্রতিরোধে প্রচলিত আইনসূমহ নিয়ে সেমিনারে ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন আইন বিভাগের শিক্ষার্থীবৃন্দ। এছাড়া মুক্ত আলোচনা পর্বে শিক্ষার্থীদের মন্তব্য গ্রহণ করা হয় এবং তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন প্যানেল আলোচকবৃন্দ।

দি মিলেনিয়াম বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড ট্রাস্টি’র চেয়ারপারসন এ্যাডভোকেট রোখসানা খন্দকারের সভাপতিত্বে এ সেমিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার মাহমুদা খাতুন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক নাজমুন্নেসা মাহতাবসহ অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি, শিক্ষার্থী ও কূটনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।


 

/এফএ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।