রাত ০৪:৫৯ ; রবিবার ;  ২১ জানুয়ারি, ২০১৮  

বাংলাদেশে মাত্র ৩১ শতাংশ শিশুর জন্ম নিবন্ধিত হয়

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥

বাংলাদেশের মোট জন্ম নেওয়া শিশুর মধ্যে মাত্র ৩১ শতাংশের জন্ম নিবন্ধন সনদ রয়েছে। এই হার এশিয়ার অন্যান্য দেশের তুলনায় সর্বনিম্ন। ওয়ার্ল্ড ভিশনের করা এক গবেষণা প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এতে বলা হয়েছে, এশিয়ায় পাঁচ বছরের নীচে ১৩ কোটি ৫০ লাখের বেশি শিশুর জন্ম নিবন্ধন সনদ নেই। এছাড়া এশিয়ার দেশগুলোতে জন্মানো প্রতি তিনটি শিশুর মধ্যে মাত্র একটি শিশুর নিবন্ধন করা হয়।

এশিয়ায় শুধু জাপান, থাইল্যান্ড ও দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিটি শিশুর জন্ম নিবন্ধন করা হয়। আর ভারতের ৪১ শতাংশ, মিয়ানমারে ৭২ শতাংশ এবং নেপালে  ৪২ শতাংশ শিশুর জন্মের পরে নিবন্ধন করা হয়।

এছাড়া ভিয়েতনাম, শ্রীলঙ্কা এবং মঙ্গোলিয়াতে এই হার ৯০ শতাংশের ওপরে।

সোমবার ব্যাংককে শুরু হওয়া পাঁচ দিনব্যাপী 'নাগরিক নিবন্ধীকরণ ও গুরুত্বপূর্ণ পরিসংখ্যান' বিষয়ক একটি মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলনে এই বিষয়ে চুক্তি সই এবং আলোচনার লক্ষ্যে ৪০টিরও বেশি দেশের মন্ত্রীরা অংশগ্রহণ করেছেন।

ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের উপদেষ্টা পরিচালক চন্দন জেড গোমেজ বলেন, 'জন্ম নিবন্ধন খুব গুরুত্বপূর্ণ এবং আবশ্যক হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশে এর হার খুবই নগণ্য'।

তিনি আরও বলেন, এই সম্মেলনে সার্কভুক্ত দেশগুলোর প্রতিটি শিশুর নিবন্ধন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে জন্ম নিবন্ধন প্রক্রিয়াটিকে ডিজিটাল করার ব্যাপারে একটি সমঝোতায় পৌঁছাবেন। এছাড়া ২০২৪ সালের মধ্যে বাংলাদেশে জন্ম নিবন্ধনের সঠিক লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করারও আশাবাদ জানিয়েছেন তিনি।

ওয়ার্ল্ড ভিশন অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী টিম কসটেললো বলেন, 'শুধুমাত্র সঠিক তথ্য এবং জন্ম নিবন্ধনে না থাকায় সারা বিশ্বের প্রায় ২৫ থেকে ৫০ কোটি মানুষ আনুষ্ঠানিকভাবে অদৃশ্য রয়ে যাচ্ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং নিরাপত্তার মতো গুরুত্বপূর্ণ সরকারি সেবাখাতের তালিকায় এদের নাম না থাকার এটাই মূল কারণ।'

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, নিবন্ধনবিহীন শিশুদের ক্ষেত্রে শিশুপাচার ও শিশুশ্রমের ঝুঁকি বেশি থাকে। সাধারণত নিম্নবিত্তদের ক্ষেত্রেই নিবন্ধনহীনতা বেশি দেখা যায়। আর একারণে তাদের আইনি সহায়তা এবং শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় আনা যায় না।

/এসএ/এসটি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।