রাত ১০:১০ ; সোমবার ;  ২২ জুলাই, ২০১৯  

ইবোলা প্রতিরোধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ হাইকোর্টের

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট॥ বাংলাদেশে ইবোলা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে কিছু হাসপাতালে বিশেষ চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে ও প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র সংগ্রহের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি মীর্জা হোসেন হায়দার ও বিচারপতি আতাউর রহমান খানের বেঞ্চ আজ বুধবার এই নির্দেশ দেন। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে আগতদের ওপর পর্যবেক্ষণ-পরীক্ষা করে তারা ইবোলা আক্রান্ত কিনা তা নিশ্চিত করতে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণে ব্যর্থতা কেন সংবিধানের ৩২ অনুচ্ছেদের পরিপন্থী ঘোষণা করা হবে না এবং কার্যকর প্রতিষেধক ব্যবস্থা প্রহণের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে ছয় সপ্তাহের রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। স্বরাষ্ট্রসচিব, স্বাস্থ্যসচিব, সিভিল অ্যাভিয়েশন বিভাগের চেয়ারম্যান ও পরিচালক, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ও ডিজি ইমিগ্রেশনকে এই রুলের বিবাদী করা হয়েছে। আদালত অন্তর্বর্তীকালীন আদেশে কিছু হাসপ‌‌‌াতালে ইবোলা ভাইরাসের বিশেষায়িত চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন। একইসঙ্গে সম্প্রতি আফ্রিকা থেকে বাংলাদেশে আগত ছয় ব্যক্তিকে পরীক্ষা করে তাদের দেহে ইবোলা সংক্রমণ আছে কিনা ও বিশেষায়িত হাসপাতালে তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে কিনা, সে ব্যাপারে দুই সপ্তাহের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের (কমপ্লায়ান্স রিপোর্ট) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ইবোলা ভাইরাসের প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র ও পরীক্ষার যন্ত্রপাতি অতিসত্বর সংগ্রহের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ দেওয়ার জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কয়েকটি মনিটরিং টিম ও মেডিক্যাল টিম গঠন করে সব আন্তর্জাতিক বিমান, নৌ ও স্থলবন্দরে নিয়োজিত করে বিদেশ থেকে আসা ব্যক্তিদের পরীক্ষা ও পর্যবেক্ষণেরও নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। গত ১৬ অক্টোবর বেসরকারি সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের করা এক রিটের পরিপ্রেক্ষিতে এসব নির্দেশ দেন হাইকোট। সংগঠনটির পক্ষে রিট আবেদন করেন আসাদুজ্জামান সিদ্দিকী। রিট আবেদনকারীর পক্ষে আজ (বুধবার) শুনানি করেন মনজিল মোর্শেদ। /জেএ/এফএস/একে/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।