বিকাল ০৪:৪৭ ; বৃহস্পতিবার ;  ২১ নভেম্বর, ২০১৯  

মোবাইলের বায়না: মা ও ভগ্নিপতির মারপিটে কিশোরের মৃত্যু

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

যশোর প্রতিনিধি।। মোবাইলফোন সেট কেনার আব্দার আর তা নিয়ে বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে মা ও দুলাভাইয়ের পিটুনিতে মৃত্যু হয়েছে মোস্তাক হোসেন (১৪) নামে এক কিশোরের। এ ঘটনায় পুলিশ মা রেবেকা বেগমকে আটক করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার দুপুরে যশোরের চৌগাছা উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর গ্রামে। নিহতের চাচা ওবায়দুল হক জানান, মোস্তাক বেশ কিছুদিন ধরে একটি মোবাইলফোন কিনে দেয়ার জন্য তার মায়ের কাছে আবদার করে আসছিল। শুক্রবার দুপুরেও সে একই আব্দার করে। এসময় মা রেবেকা বেগম তাকে গোয়াল থেকে গরু বের করে খাবার দিতে বলেন। মোবাইলফোন কিনে না দেওয়া পর্যন্ত সে বাড়ির কোনও কাজ করবে না বলে জানিয়ে দেয়। এসব নিয়ে মা ও ছেলের মধ্যে তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে রেবেকা বেগম ছেলেকে একটি ডাল দিয়ে আঘাত করেন। প্রতিক্রিয়ায় মাকে গালিগালাজ করায় সেখানে থাকা তার ভগ্নিপতি মনু মিয়া এ পর্যায়ে তাকে মারধর করেন। একপর্যায়ে মোস্তাক অচেতন হয়ে পড়লে তাকে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। চৌগাছা থানা ওসি আকরাম হোসেন জানান, ঘটনার পর খবর পেয়ে বাড়ি থেকে রেবেকা বেগমকে আটক করা হয়। তিনি তার সন্তানকে মারধর করার কথা স্বীকার করেন। রেবেকা জানান, হত্যাকাণ্ডে জড়িত মোস্তাকের ভগ্নিপতি মনু পালিয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে সন্ধ্যার দিকে যশোর মেডিক্যাল কলেজ হাসপতাল মর্গে পাঠিয়েছে। নিহত মোস্তাক স্থানীয় গরীবপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ছিল। তার পিতা মহিদুল ইসলাম একজন প্রবাসী। /একে/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।