দুপুর ০২:১০ ; বৃহস্পতিবার ;  ২৭ জুন, ২০১৯  

হংকংয়ে বিক্ষোভকারীদের মোবাইলে নজরদারির অভিযোগ!

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

সুনাম হোসেন॥ পূর্ণ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ২০১৭ সালের নির্বাচনের দাবিতে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে পড়েছে চীনের বিশেষ প্রশাসনিক অঞ্চল হংকং। পূর্ণ গণতন্ত্র দিতে বেইজিং অসম্মতি জানানোর প্রতিবাদে নতুন করে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়ে।

এমন উত্তাল সময়ে হংকংয়ের রাজপথের বিক্ষোভকারীদের মোবাইল ফোনে ম্যালওয়ার হামলার গুজব রটেছে।

গণচীনে বরাবরই সোশ্যাল মিডিয়া এমনকি যেকোনও গণমাধ্যম সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকে। চীনে বসে ফেসবুক, ইউটিউবসহ বেশ কয়েকটি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করা যায় না।

সমাজতান্ত্রিক সরকারের নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে চীনের ইন্টারনেট শক্তি। কিন্তু হংকং যখন গণতন্ত্রের অান্দোলনে বিভোর ঠিক তখনই লেকুন মোবাইল সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠানের গবেষকরা অভিযোগ করেছে, চীন সরকার বিক্ষোভকারীদের অাইফোনে ম্যালওয়ার ছড়িয়ে দিয়েছে। এর মাধ্যমে মোবাইলগুলো নজরদারির অাওতায় নিয়ে এসেছে বলেও লেকুন দাবি করছে।

এমন অভিযোগের পরপরই মোবাইল বিশেষজ্ঞরা এটিকে ভিত্তিহীন এবং সন্দেহজনক বলে উল্লেখ করার পর লেকুন 'শতভাগ নিশ্চিত নয়' বলে স্বীকার করে নিয়েছে।

লেকুন অভিযোগ করেছে, 'এক্সার এমর‌্যাট' ম্যালওয়ারটি 'অকুপাই সেন্ট্রাল অ্যাপ' নামে তৈরি করে কোনও ব্যবহারকারী মোবাইলে ইন্সটল করে। তারপর অ্যান্ড্রয়েড ম্যালওয়ারটি হোয়াটস অ্যাপ -এর মাধ্যমে বিক্ষোভকারীদের মোবাইলে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

এখন পর্যন্ত দুটি অভিযোগ পেয়েছে বলে দাবি করেছে লেকুন। তবে তাদের রিপোর্টে বলা হয়, এই ম্যালওয়ার হংকংয়ের বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধেই ব্যবহার হচ্ছে বলে কোনও তথ্য-প্রমাণ লেকুনের হাতে নেই।

এমন অভিযোগের বিপরীতে ম্যালওয়ারবিষয়ক গবেষক ক্লাউডিও গোরনিরি বলেছেন, মালওয়ার কেউ ছড়িয়ে দিচ্ছে এমন কোনও প্রমাণ এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। এমনকি চীনা সরকারই এই ম্যালওয়ার ছড়িয়ে দিচ্ছে এই বিষয়েও কোনও তথ্য-প্রমাণ নেই।

নিশ্চিত না হয়ে এমন তথ্য ছড়িয়ে দেওয়ায় উল্টো লেকুন কর্তৃপক্ষই সমালোচনার মধ্যে পড়েছেন। তবে লেকুন সর্বশেষ জানিয়েছে, সার্ভারে এমন একটি ম্যালওয়ার ধরা পড়েছে যা অামাদের কাছে সন্দেহজনক লেগেছে। এটি ঠিক সরকার নজরদারি করছে কিনা এমন কোনও প্রমাণ অামাদের হাতে নেই।

তবে তাদের গবেষণা বিভাগ এই ম্যালওয়ারটি নিয়ে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে বলেও লেকুন সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছে।

/এইচএএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।