রাত ১২:২১ ; রবিবার ;  ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮  

৬০ হাজার ডলারের কৈ মাছ! (ভিডিও)

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

মিজানুর রহমান॥ সম্প্রতি জাপানের অভিজাত একটি মাছ প্রদর্শনীতে সবচেয়ে সুন্দর মাছের স্বীকৃতি পেয়েছে একটি জাপানি কৈ। এর দাম উঠেছে ৬০ হাজার ডলার। বাংলাদেশের কৈ মাছের সঙ্গে এর নামে মিল থাকলেও বৈশিষ্ট্যে পার্থক্য রয়েছে। এই মাছটি মূলত অ্যাকুরিয়ামের শোভা বৃদ্ধি করে থাকে। খ্রিস্টপূর্ব পঞ্চম শতকে চীনা দার্শনিক কনফুসিয়াসের সময় থেকে এই মাছের অস্তিত্বের কথা জানা যায়। গোল্ডফিশ ও জাপানি এই কৈ-এর পূর্বপুরুষ একই। এ সূত্রে মাছটির শরীরে দৃষ্টিনন্দন বর্ণবৈচিত্রের সমাহার ঘটেছে। আর তাই একই মাছের গায়ে দেখা যায় সাদা, কালো, নীল, লাল, হলুদ আর ক্রিম রঙের ছটা। বিজ্ঞানীরা জানান, জাপানি কৈ মাছের ২০টির বেশি জাত হয়ে থাকে। সূর্যোদয়ের দেশ জাপানিদের কাছে এই মাছটির রয়েছে অন্যরকম তাৎপর্য। তারা এটিকে সম্পদ, সমৃদ্ধি, প্রেম, সফল কর্মজীবন ও সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে মনে করে। তাই নিজেদের অ্যাকুয়ারিয়ামে এই মাছ সংরক্ষণে খরচের ক্ষেত্রে কোনও কার্পণ্য করে না তারা। আকারে বিশালদেহী এই কৈ মাছ দৈর্ঘ্যে সর্বোচ্চ তিন ফুট পর্যন্ত লম্বা হয়ে থাকে। অত্যন্ত বুদ্ধিমান এই মাছটি তার মালিককে চিনে রাখতে পারে। পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ পাওয়া জাপানি কৈ-এর ক্ষেত্রে দেখা গেছে-- মালিক ছাড়া অন্য কারও দেয়া খাবার পর্যন্ত গ্রহণ করে না প্রভুভক্ত এই প্রাণী। তবে এই মাছটি পালনে রয়েছে নানান নিয়ম-কৌশলের প্রতিবন্ধকতা। সর্বনিম্ন ১৫ থেকে সর্বোচ্চ ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার পানিতে এরা বেঁচে থাকতে পারে। তাপমাত্রার ঘনঘন তারতম্য এই মাছের মৃত্যু ঘটাতে পারে। সাধারণত এই মাছটি ২৫ থেকে ৩০ বছর বেঁচে থাকতে পারে। তবে অনুকূল পরিবেশ পেলে এই মাছ ১০০ বছরও বেঁচে থাকতে পারে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। তাই বাংলায় অহরহ ব্যবহৃত 'কৈ মাছের প্রাণ' কথাটিকে এবার জাপানি এই কৈ আরও শক্ত ভিত্তি দিয়েছে-- এটা বলা যেতেই পারে। প্রসঙ্গত, পানি থেকে ডাঙায় তোলার পরও দীর্ঘসময় বেঁচে থাকার ক্ষমতার কারণে বাংলাদেশি কৈ মাছের সুনাম আছে। এছাড়া দীর্ঘজীবী কোনও ব্যক্তিকে ইঙ্গিত করে বাংলায় অহরই বলা হয়-- কৈ মাছের প্রাণ। জাপানি এই কৈ মাছেই বৈজ্ঞানিক নাম সাইপ্রিনাস ক্যাপ্রিও।

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।