রাত ০৪:৫১ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৭ অক্টোবর, ২০১৯  

স্বপ্নের ঢাকা চাইলে..

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

একজন সচেতন নাগরিক সবসময় চেষ্টা করেন নিজের দ্বায়িত্বটা সুন্দরভাবে পালন করতে। তা হতে পারে নিজের শহর পরিষ্কার রাখার মাধ্যমে। আবার হতে পারে শহরের জন্য কোন পরিকল্পনা করে। ‌‌‌বাংলা ট্রিবিউন মেনজ-এর নিয়মিত পাঠক মো. শহীদুর রহমান নিজে থেকে কিছু পরামর্শ দিয়েছেন ঢাকার যানজট নিরসনের। আসুন জেনে নেই, পাঠকের চোখে সমস্যার সমাধান।

[caption id="attachment_54587" align="alignleft" width="150"]মো. শহীদুর রহমান মো. শহীদুর রহমান[/caption]

মো. শহীদুর রহমান॥

কতজন মানুষ প্রতিদিন উত্তরা থেকে মতিঝিল, ফার্মগেট, ধানমণ্ডি বা পুরান ঢাকার দিকে যাতায়াত করে? বিপরীত দিকেই বা কতজন মানুষ যায়? ট্রাফিক জ্যাম তো শেষই হচ্ছে না! বাংলাদেশ এর প্রত্যেকটি মানুষকেই মনে হয় ঢাকাতে বসবাস করতে হবে এবং সকাল ৯টার সময় উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত কোনো না কোন যানবাহনে বসে থাকতে হবে।

আচ্ছা যদি এমন করা যায় যে,

. কমলাপুর রেল স্টেশন থেকে যে সকল আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করে তা পরিবর্তন করে নগরী থেকে কিছু দুরে টঙ্গী স্টেশন থেকে চালু করা যেতে পারে। অর্থাৎ টঙ্গী স্টেশনকে আন্তঃনগর ট্রেন চলাচলের জন্য মূল স্টেশন হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে।

. কমলাপুর থেকে টঙ্গী পর্যন্ত শুধু লোকাল ট্রেন চলবে এবং এই পথে যতগুলো রোড ক্রসিং থাকবে সেগুলো বন্ধ করে যান চলাচলের জন্য ওভারপাস ব্যবহার করা যেতে পারে।

. পুরাতন রেল স্টেশন গুলো সংস্কার করে যাত্রীদের উপযোগী করা যেতে পারে।

. নতুন করে আরো কিছু স্টেশন নির্মাণ করা যেতে পারে উত্তরা, মহাখালী, মগবাজার এলাকায়।

. প্রতি ১০ মিনিট পরপর একটি ট্রেন কমলাপুর থেকে টঙ্গীর পথে এবং ওপর একটি ট্রেন টঙ্গী থেকে কমলাপুরের পথে যাত্রা শুরু করবে।

কি হতে পারে এ থেকে ?

. উত্তর দক্ষিণে রাস্তার উপর থেকে চাপ অনেক কমে যাবে এবং এই পথের যাত্রীরা ট্রেনে করে অনেক দ্রুত গন্তব্য স্থলে সময়মত পৌঁছাতে পারবে।

. পূর্ব পশ্চিমের যাত্রীরাও কোনো ট্রেনের সিগনাল ব্যতীত চলাচল করতে পারবে।

. মেট্রো রেলের মত এত খরচও হবেনা,  এত সময়েরও প্রয়োজন হবে না।

*পাঠকের যেকোন মতামত তার নিজস্ব। এখানে কর্তৃপক্ষের কোন দায় নেই ।

আরএফ

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।