রাত ১১:০৪ ; বুধবার ;  ১৭ অক্টোবর, ২০১৮  

গেম: সিরিয়াস স্যাম-২

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

এটি একটি অ্যাকশন, অ্যাডভেঞ্চার ও থার্ড পারসন শুটিং গেম। ভিন গ্রহের প্রাণীদের থেকে পৃথিবী রক্ষার অন্যবদ্য একটি কাহিনী। গেমটি ডেভেলপ করেছে ক্রো টিম কোম্পানি।

পৃথিবী যখন মিসর কেন্দ্রিক সভ্যতায় ভর করে এগিয়ে চলছে তখন পৃথিবীর উত্তরোত্তর উন্নতি ভিন গ্রহবাসীদের মোটেও পছন্দ হচ্ছিল না। তাই তারা ঝাঁকে ঝাঁকে নেমে আসে পৃথিবীর সভ্যতা কেন্দ্রকে ধ্বংস করার জন্য। সিরিয়াস স্যাম নামে একটি অভিযাত্রী তখন তপ্ত রোদ্দুরে মিসরের পিরামিডগুলোকে দেখে নিজের জ্ঞান-পিপাসা মেটাচ্ছিল। অনিন্দ্য সুন্দর সেই দিনের আকাশ কালো করে তখন এলিয়েনরা নেমে আসে পিরামিডগুলোতে।

স্যাম প্রথম দিকে কিছু বুঝে উঠতে না পারলেও পরে খুব দ্রুত সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর থাকা হয়নি স্যামের। সিরিয়াস স্যাম-২ নিয়ে এসেছে পৃথিবীর নানা অজানা স্থান আর ভিন গ্রহবাসীদের হাত থেকে স্যামের পৃথিবী বাঁচানোর অনবদ্য কাহিনী।

সিরিয়াস স্যাম এমন একটি গেম, যা নিয়ে একবার বসলে যেকোনও গেমার কোনওভাবেই আর গেমটি শেষ না করে উঠতে পারবে না। টানা খেলে গেলে সম্পূর্ণ গেমটি শেষ করতে লাগতে পারে চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা। কয়েক ঘণ্টার গেমপ্লেতে গেমার পাবে লক্ষাধিক এলিয়েন ধ্বংস করার আনন্দ।

10

আছে অসম্ভব মারাত্মক সব অস্ত্র। আছে রিভলবার, শটগান, প্লাজমা গান, মিনি গান, চেইন গান, রেইল গান। অারও অাছে বিশালাকার সব দানব। উডন্ত দানব, মানুষখেকো গাছগাছালিও অাছে। আর এগুলোকে ধ্বংস করার জন্য স্যাম ব্যবহার করতে পারবে নানা ধরনের হেলিপ্যাডসহ অনেক কিছু।

কম্পিউটার কনফিগারেশন:

অপারেটিং সিস্টেম: উইন্ডোজ এক্সপি/ভিসতা/সেভেন, প্রসেসর: পেন্টিয়াম ৪.২ গিগাহার্টজ/এএমডি অ্যাথলন এক্সপি ২০০০+, র‌্যাম: ১ গিগা, গ্রাফিক্স কার্ড: জি ফোর্স ৫০০০ সিরিজ জিটিএস/রেডিওন, ২৫৬ মেগা উইথ পিক্সেল শেডার, ফ্রি হার্ডডিস্ক স্পেস: ৪ গিগা।

-আনোয়ারুল ইসলাম জামিল

/এইচএএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।