সন্ধ্যা ০৬:৫৭ ; সোমবার ;  ২০ মে, ২০১৯  

স্মার্টফোন যখন চশমা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

সোহেল রানা॥

ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় ও ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির গবেষকরা দৃষ্টিশক্তির উন্নয়নে মোবাইল ডিভাইসের পর্দায় ব্যবহারযোগ্য নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছেন। সাম্প্রতিক এক বিবৃতিতে বিশ্ববিদ্যালয় দুটির গবেষকরা এই প্রযুক্তিটি উদ্ভাবনের কথা জানান।

অধিকহারে মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার যে দৃষ্টিশক্তির জন্য কিছুটা ক্ষতিকর, তা কমবেশি সবাই জানেন। দৃষ্টিশক্তির সমস্যার জন্য ব্যবহৃত হয় চশমা। কিন্তু নতুন প্রযুক্তিটির কল্যাণে মোবাইল ডিভাইস ব্যবহারের ক্ষেত্রে চশমা পরার কোনো প্রয়োজন হবে না।

মূলত ক্ষীণদৃষ্টি সংশোধনে কাজ করবে নতুন প্রযুক্তিটি। এ প্রযুক্তির মাধ্যমে মোবাইল ডিভাইস পর্দার প্রতিটি পিক্সেলের রেজুলেশন ব্যবহারকারীর প্রয়োজন অনুযায়ী পরিবর্তন করা যাবে। আর এতে প্লাস্টিকের একটি পিন থাকবে, যার মাধ্যমে ছবির রেজুলেশন প্রয়োজনমতো বাড়ানো-কমানো যাবে।

বিশ্লেষকদের মতে, চশমার কাজ করবে পর্দার নতুন প্রযুক্তি। এর মাধ্যমে অতিরিক্ত মোবাইল ডিভাইস ব্যবহারে চোখের সমস্যার প্রশ্নটি ভিত্তিহীন হয়ে যাবে। এ প্রযুক্তির কারণে চোখের সমস্যার পরিবর্তে উপকারই হবে বেশি।

অনেকের মধ্যেই ক্ষীণদৃষ্টি সমস্যাটি দেখা করা যায়। যুক্তরাজ্যের প্রতি তিনজনের একজনে রয়েছে এ সমস্যা। যুক্তরাষ্ট্রে এ সমস্যায় ভুক্তভোগীর সংখ্যা মোটের ওপর ৪০ শতাংশ। এশিয়ায় এ সংখ্যা মোট জনসংখ্যার অর্ধেকেরও বেশি।

এদিকে মোবাইল ডিভাইস ব্যবহারকারীর সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে। এ কারণে বলা যায়, যারা মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার করছেন; তাদের অনেকেই ক্ষীণদৃষ্টি সমস্যায় ভুগছেন। ফলে তাদের দৃষ্টিশক্তির জন্য বেশিক্ষণ মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার এতদিন হুমকির কারণ ছিল। নতুন প্রযুক্তিটি উদ্ভাবনের কারণে কমে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ফু চুং হুয়াং বলেন, চোখের দৃষ্টিশক্তির উন্নয়নে এখন গ্রাহকরা চশমার বদলে মোবাইল ডিভাইস ব্যবহার করবেন। মোবাইল ডিভাইসের ব্যবহার যেহেতু বাড়ছে তাই প্রযুক্তিটি কার্যকর ভূমিকা পালনে সক্ষম হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এইচএএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।