দুপুর ০১:০২ ; রবিবার ;  ২৬ মে, ২০১৯  

ভার্চুয়াল কার্ডে ঈদ শুভেচ্ছা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

হিটলার এ. হালিম॥ হালের ঈদ-পার্বণে প্রিয়জন, বন্ধু-বান্ধকে শুভেচ্ছা জানাতে সনাতনি ঈদ কার্ডের ব্যবহার কমে গেছে। সেই জায়গা নিয়ে নিয়েছে ভাচুর্য়াল ঈদ কার্ড বা ই-কার্ড। তাই চারদিকে কেবল ই-কার্ডের জয়জয়কার। অন্যদিকে ভার্চুয়াল কার্ডের পাশাপাশি সনাতনি ঈদ কার্ডও পাঠানো যায় অনলাইন ব্যবহার করে। দেশে এখন বিভিন্ন ধরনের ই-কমার্স সাইট রয়েছে। ওইসব সাইটে ঢুকে পছন্দের কার্ডটি কাউকে পাঠাতে চাইলে অর্ডার করলেই হবে। নির্দিষ্ট অর্থের বিনিময়ে সাইট কর্তৃপক্ষ দেশের যে প্রান্তেই হোক না কেন কার্ড পৌঁছে দেবে। এরকমই একটি সাইট http://www.bangladeshgiftshop.com/cards এই সাইটের কার্ড সেকশনে গিয়ে দেশে বা বিদেশে অবস্থানরত প্রিয়জনকে কার্ড পাঠাতে পারবেন। বিদেশে অবস্থানরত কেউ দেশে তার প্রিয়জনকে কার্ড উপহার দিতে চাইলেও সাইট কর্তৃপক্ষ ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে কার্ড পৌঁছে দিতে পারবে। তবে এ কাজের জন্য নির্দিষ্ট বিনিময় মূল্য পরিশোধ করতে হবে। এ ছাড়াও রয়েছে http://www.akhoni.com/ সহ অারও অনেক সাইট। তবে ঈদ কার্ড পাঠানোর এ মওসুমে ই-মেইল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বসবাসকারীরা (নেটিজেন) সবাই ঝুঁকছে ই-কার্ডের প্রতি। যানজটের যন্ত্রণা সয়ে, গাঁটের পয়সা খরচ করে, এ দোকান, ও দোকান ঘুরে পছন্দসই ঈদ কার্ড কেনা বর্তমানে বেশ জটিল একটি ব্যাপারে দাঁড়িয়েছে।eid-mubarak-e-cards 3 তার চেয়ে এই ভালো-- কম্পিউটার, ল্যাপটপ না হয় হাতের ট্যাবটা খুলে কোনও একটা ই-কার্ডের সাইটে ঢুকে কার্ড পছন্দ করে পাঠিয়ে দেওয়া কাঙ্ক্ষিত ব্যক্তি বা ব্যক্তিদের ই-মেইল ঠিকানায়। অার তা না হলে, হাতে সময় থাকলে নিজেই বানিয়ে ফেলতে পারেন দারুন সব ই-কার্ড। কার্ড পাঠানোও হলো, অাবার নিজের সৃষ্টিশীলতাও জানিয়ে দেওয়া গেল সবাইকে। ঠিক দুয়ারে দাঁড়িয়ে অাছে ঈদ। হাতে সময় নেই একদমই। ঈদ উপলক্ষে ভার্চুয়াল আয়োজন নিয়ে প্রস্তুত রয়েছে বেশ কিছু ওয়েবসাইট। এমনকি ফেসবুকও। যে কোনও বিশেষ দিনে বা উৎসবে শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য বিভিন্ন ডিজাইনের ই-কার্ড পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন সাইটে। সার্চ ইঞ্জিন গুগলে গিয়েও ই-কার্ড সাইট লিখে খুঁজলে পাওয়া যাবে অগুণতি সাইটের ঠিকানা। ই-কার্ডের খুব ভালো সংগ্রহ নিয়ে জনপ্রিয় হয়েছে http://www.123greetings.com বিশেষ দিন এবং বিভিন্ন উৎসবের সুন্দর সুন্দর শুভেচ্ছা বার্তাযুক্ত ই-কার্ড পাওয়া যায় সাইটটিতে। এ সাইটের প্রায় সব ই-কার্ড ফ্ল্যাশ অ্যানিমেশনে তৈরি। সাইটে আপনার পছন্দের ঈদ কার্ড নির্বাচন করে যাকে পাঠাবেন, তার নাম ও ই-মেইল ঠিকানা লিখে সেন্ড বাটনে ক্লিক করলে কার্ডটি প্রাপকের ই-মেইল ঠিকানায় পৌঁছে যাবে। যদি ব্যস্ততার কারণে ঠিক সময়ে শুভেচ্ছা পাঠাতে ভুলে যাওয়ার অাশঙ্কা থাকে, তবে নির্দিষ্ট দিনটি নির্বাচন করে শুভেচ্ছা পাঠানোর কাজটি আগেভাগেই সেরে রাখা যাবে। ই-কার্ডের সংগ্রহ অাছে http://www.bdgreetingscard.com এ। এখান থেকে পছন্দের ই-কার্ডটি যে কারও ই-মেইলে পাঠানো যাবে। এর পাশাপাশি ফেসবুকের বন্ধুদেরও পাঠানো যাবে।   e-Eid card 1ঈদের বিভিন্ন ধরনের ফ্লাশ কার্ড নিয়ে সাজানো হয়েছে আরও কয়েকটি সাইট। এসব সাইটে ঈদ কার্ডের সঙ্গে শুভেচ্ছা বার্তা লিখে দেওয়ার সুবিধাও পাওয়া যাবে। এ ধরনের একটি ওয়েবসাইট হলো http://www.eidmubarak.com। যেখানে শুভেচ্ছাবার্তার সঙ্গে স্মাইলি যুক্ত করার সুবিধাও রয়েছে। এক্ষেত্রেও কার্ডটি পাঠাতে হবে অবশ্যই কোনও ই-মেইল ঠিকানায়। এ ছাড়াও ই-কার্ড পাওয়া যাবে http://www.eid-card.net সাইটে।   অনেকে ফেসবুকে স্ট্যাটাস, মেসেজ কিংবা ওয়ালে লিখেও ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করে থাকে। ফেসবুকে ঈদের শুভেচ্ছা কার্ড কিংবা ভার্চুয়াল উপহার পাঠানোর কিছু মজার প্রোগ্রাম ব্যবহার করে শুভেচ্ছা বিনিময়ে বৈচিত্র্য আনতে পারেন। ফেসবুক বন্ধুদের ঈদ কার্ড পাঠানোর একটি অ্যাপ্লিকেশন পাওয়া যাবে http://apps.facebook.com/eid-card-bfgffj/ এই ঠিকানায়। ফেসবুক ব্যবহারকারীরা একবার চেষ্টা করে দেখে নিতে পারেন এই সাইটটি। এইচএএইচ/একে

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।