রাত ১০:২৩ ; শুক্রবার ;  ২২ মার্চ, ২০১৯  

সোলার শার্ট

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

সোহেল রানা॥ কলকাতার বেঙ্গল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড সায়েন্স ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ফটোভোল্টায়িক সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে বিশেষজ্ঞ শান্তিপদ গণচৌধুরী বিশেষ ধরনের সোলার শার্টের ডিজাইন করেছেন।

এই শার্টের মাধ্যমে প্রায় ৪০০ ওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব। এর জন্য শান্তিপদ ২.৫ থেকে ৩ ইঞ্চি আকারের সোলার সেল ব্যবহার করেছেন। কেবল মোবাইলফোনই নয়, এই সোলার শার্টের মাধ্যমে ট্যাব, আইপড বা অন্যান্য বহনযোগ্য ডিভাইসও চার্জ করা যাবে।

মোবাইলফোন ছাড়া এই সময়ে আর একটি দিনও কল্পনা করা যায় না। মোবাইলফোন যেমন জীবনের অপরিহার্য অংশে পরিণত হয়েছে, তেমনি মোবাইল ফোনের চার্জিং সিস্টেম নিয়েও চিন্তাও বাড়ছে। কখন কোথায় মোবাইল ফোনের চার্জ শেষ হয়ে যাবে, সেই আশংঙ্কা যাদের কাজ করে সব সময়, তাদের জন্যই তৈরি হয়েছে বিশেষ ধরনের এই সোলার শার্ট।

কান্তিপদ গণচৌধুরী তার এই উদ্ভাবন সম্পর্কে বলেন, আমরা এমন ধরনের প্রযুক্তি উদ্ভাবন করার জন্য কাজ করছি, যার মাধ্যমে সোলার সেলগুলোকে শার্টের তন্তুর মাঝে মাঝে স্থাপন করা যায়। এদের অবশ্য পকেটেও স্থাপন করে ডিজাইন করা যায়। এতে করে সোলার সেল থাকলেও পোশাককে বাড়তি কোনো ঝামেলা বলে মনে হবে না।

কান্তিপদ জানিয়েছেন, তার ডিজাইন করা এই শার্টে থাকছে দু'টি স্তর। দু'টি স্তরের একটি স্তরে থাকবে ২ থেকে ৪টি ক্ষুদ্রাকৃতির ফ্যান। এই ফ্যানও চলবে সোলার সেল থেকে শক্তি সংগ্রহ করে। ফ্যানগুলো আকৃতির দিক থেকে হবে কম্পিউটারের অভ্যন্তরে ব্যবহৃত ফ্যানগুলো থেকেও ছোট আকারের।

অভিনব শার্টের ধারণা সম্পর্কে তিনি বলেন, যদি একজন মানুষের উচ্চতা সাড়ে ৫ ফুট হয়, তাহলে তার ওপর যে পরিমাণ সূর্যালোক আপতিত হয় তাতে খুব সহজেই ৪০০ ওয়াট শক্তি উৎপাদন করা সম্ভব সোলার সেল ব্যবহার করে। আর এই ৪০০ ওয়াট দিয়ে মোবাইল ফোন, ট্যাবলেটসহ বেশিরভাগ ধরনেরবহনযোগ্য ডিভাইস চার্জ করা সম্ভব।

এইচএএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।