সকাল ১১:৫৬ ; শনিবার ;  ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৯  

শক্তিশালী নেটওয়ার্ক চান নারী সাংবাদিকরা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রির্পোট॥

জাতীয় প্রেসক্লাবের ৬৫০ জন সদস্যের মধ্যে নারী মাত্র ২৩ জন। এই পরিস্থিতি থেতে উত্তরণের জন্য নারী সাংবাদিকদের মধ্যে নেটওয়ার্কিং প্রয়োজন। সাংবাদিকতার দুইদিনের এক কর্মশালা শেষে এই কথা বলেন নারী সাংবাদিকরা।

ঢাকার যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের সহায়তায় ‘ব্রিজিং প্রোগ্রাম ফর জার্নালিস্ট’ প্রজেক্টের আওতায় অনুষ্ঠিত দু’দিনব্যাপি এই কর্মশালা শেষ হয় সোমবার। জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স রুমে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদপত্র, টেলিভিশন, রেডিও এবং অনলাইন সংবাদমাধ্যমের ২০ জন নারী সাংবাদিক এতে অংশ নেন।

নারী সাংবাদিকদের জন্য একটি শক্তিশালী প্ল্যাটর্ফম খুবই প্রয়োজন উল্লেখ করে প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সিনিয়র সাংবাদিক ফরিদা ইয়াসমীন বলেন, ''নারী সাংবাদিকতার উন্নয়নের জন্য দরকার গেরিলা নেটওয়ার্কিংয়ের।''

অপরদিকে '৭০ দশকের সাংবাদিকতার চিত্র তুলে ধরে মাহমুদা চৌধুরী বলেন, ''নারী সাংবাদিকদের মধ্যে নেটওয়ার্কিংটা খুব জরুরি।'' সেইসঙ্গে নারী সাংবাদিকদের পরিস্থিতি মোকাবেলা করে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

কর্মশালায় গণমাধ্যমের স্বাধীনতা, আরটিআই, মিডিয়া ইথিকস, পেশাগত ঝুঁকি, নিউ মিডিয়া এবং নেটওয়ার্কিং বিষয়ে আলোচনা হয়। অনলাইন পত্রিকা উইম্যান চ্যাপ্টারের সম্পাদক সুপ্রীতি ধর, দৈনিক জনকণ্ঠের বিশেষ প্রতিবেদক সুমি খান, ভোরের কাগজের কূটনৈতিক প্রতিবেদক আঙ্গুর নাহার মন্টি, বেসরকারি টেলিভিশন এটিএন বাংলার বার্তা সম্পাদক শাহনাজ মুন্নি, বাংলাভিশনের বার্তা সম্পাদক শারমীন রিনভী, ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেসের বিশেষ প্রতিবেদক মুনিমা সুলতানা প্রশিক্ষণ দেন।

প্রকল্প পরিচালক অাঙ্গুর নাহার মন্টি বলেন, ‌রাজধানী ঢাকা থেকে ব্রিজিং প্রোগ্রাম ফর জার্নালিস্ট এর কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ভবিষ্যতে প্রতিটি বিভাগ ও জেলায় তারা এই নেটওয়ার্ককে নিয়ে যেতে চান।

আমেরিকান সেন্টারের তথ্য কর্মকর্তা মনিকা সাই বলেন, ''বাংলাদেশে নারীদের ভয়েস শক্তিশালী। আমি বিশ্বাস করি, বাংলাদেশের উন্নয়নের জন্য নারী সাংবাদিকদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং তারা সাহসিকতার সঙ্গে কাজ করছেন।''

কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন ঢাকার আমেরিকান সেন্টারের পরিচালক ভিরাজ লাবেইলি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাবরিনা সুলতানা চৌধুরী, ডিপ্লোমেটিক করেসপন্ডেন্টস্ এসোসিয়েশন বাংলাদেশের (ডিকাব) সভাপতি মাইনুল আলম, ভোরের কাগজের সিটি এডিটর ইখতিয়ারউদ্দিন এবং ফিন্যান্সিয়াল এক্সেপ্রেসের বিশেষ প্রতিবেদক মুনিমা সুলতানা।

আরও উপস্থিত ছিলেন আমেরিকান সেন্টারের প্রধান তথ্য কর্মকর্তা মেরিনা ইয়াসমিন, এটিএন বাংলা’র বার্তা সম্পাদক শাহনাজ মুন্নী, বাংলা ভিশনের বার্তা সম্পাদক শারমীন রিনভী প্রমুখ।

জেএ/এফএস

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।