সকাল ০৮:১৫ ; রবিবার ;  ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯  

বিআরটিসির 'মহিলা বাস' সেবা পর্যাপ্ত নয়

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

আবু হায়াত মাহমুদ॥ চালু হওয়ার পর বেশ কয়েক বছর কেটে গেলেও রাজধানী ঢ‌‌‌াকার নারীরা এখনও বাংলাদেশ রোড অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট করপোরেশনের (বিআরটিসি) মহিলা বাস সার্ভিসের সুবিধা সে অর্থে পাচ্ছে না। যদিও নগরের নারী যাত্রীদের ভোগান্তি দূর করতেই বিআরটিসি চালু করেছিল এই বিশেষ বাস সার্ভিস। অনেক নারী যাত্রীর অভিযোগ, শুধু যে রাস্তায় বাসের সংখ্যা কম তাই নয়, বাসের সময় এবং স্টপেজেরও কোনও ঠিকঠিকানা নেই। বিআরটিসির নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সূত্র জানায়, নারী বাস সার্ভিস ব্যাপক অলাভজনক। দুই বছর আগে রাজধানীর তিনটি রুটে চালু হওয়া ৮টি বাসের মধ্যে এখন সচল আছে মাত্র পাঁচটি। মতিঝিলে একটি বেসরকারি ব্যাংকে চাকরি করেন আজিমপুরের চৈতি ইসলাম। তিনি বলেন, 'আমি বাসেই চলাফেরা করি। তবে এই বিশেষ মহিলা বাস কখনও দেখিনি। এমনকি এরকম বাস সার্ভিস যে আছে তা-ও জানিনা। বিআরটিসি যদি এ ধরনের বাস চালু করতেই চায়, তাহলে বাস আর রুটের সংখ্যা আরও বাড়াতে হবে।' প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কাছ থেকে এই বাসের সংখ্যা বাড়ানোর সরাসরি নির্দেশ থাকলেও বিআরটিসি কর্তৃপক্ষ অজানা কারণে তা করছে না। বিআরটিসির সূত্র আরও জানায়, রামপুরা-বাড্ডা-খিলগাঁও-মতিঝিল রুটে চালু হওয়া চারটি বাসের মধ্যে এখন সচল আছে তিনটি বাস। টঙ্গি-মতিঝিল রুটের দুটি বাসের মধ্যে এখন একটি আছে। মিরপুর-১২ থেকে মতিঝিলেও চলতো দুটি বাস, এখন চলছে একটি। এর মধ্যে বেশিরভাগ বাসই দিনে একটি রুটে একবার মাত্র যাওয়া আসা করে। মিরপুরের বাসিন্দা হালিমা আক্তার বলেন, 'আমি এই বাসে আসা-যাওয়া করি, কিন্তু মাঝে মধ্যে বাসের জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। শেষ পর্যন্ত যখন আসে, তখন বাসে এত ভিড় থাকে যে ওঠা খুব কঠিন হয়ে যায়।' তিনি আরও বলেন, 'আমি কর্তৃপক্ষের কাছে মহিলা বাসের সংখ্যা বাড়াতে অনুরোধ করছি। এখন যে সার্ভিস আছে সেটা আসলে নামে মাত্র।' মহিলা বাসের অবস্থা অত্যন্ত খারাপ হওয়ায় অনেকেই এই বাসে ওঠেন না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিআরটিসির এক কর্মকর্তা জানান, নিজেদের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্টাফ বাসের স্বল্পতা পূরণ করার জন্যই কমানো হয়েছে মহিলা বাসের সংখ্যা। বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার কারণেও কমে গেছে বাসের সংখ্যা। যোগাযোগ করা হলে বিআরটিসি জেনারেল ম্যানেজার (অপারেশন) মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম তালুকদার এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, 'মতিঝিল-কল্যাণপুর-মিরপুর, মতিঝিল-খিলগাঁও-তালতলা, গাজীপুর-ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ-ডেমরা-ঢাকা এই কয়েকটি রুটে ১৫টি বাস চলছে।' তিনি আরও বলেন, বিআরটিসির বাসের সংখ্যা মোটেই কম নয়, বরং কিছু কিছু রুটে আমরা যাত্রীও পাই না। ইউআর/ এসটি

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।