দুপুর ০১:১৫ ; শনিবার ;  ২০ জানুয়ারি, ২০১৮  

অ্যাকশনধর্মী গেম ব্যাটলফিল্ড ফোর

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

ব্যাটলফিল্ড ফোর এমনই এক বিপজ্জনক গেম যা খেলাঘরে নিয়ে যাবে গেমারকে। এখন পর্যন্ত ব্যাটলফিল্ড ডাইসের ফার্স্ট পারসন শুটিং কিংবদন্তি হয়ে অাছে, যাতে পাওয়া যাবে ১৯৪২ সালের বিশ্বযুদ্ধের আমেজ। সঙ্গে আরও আছে ব্যাটলফিল্ড টু-এর কমান্ডিং ট্যাকটিক্স, বাস্তববাদ, শ্রেণীবিন্যাস আর ব্যাটলফিল্ড তিনের অসম্ভব সুন্দর গ্রাফিকস। ব্যাটলফিল্ড ফোরের যুদ্ধক্ষেত্র হচ্ছে আজ পর্যন্ত তৈরি হওয়া গেমগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বাস্তবসম্মত যুদ্ধক্ষেত্র, যা গেমারকে বর্ণনা করেও পুরোপুরি বোঝাতে ব্যর্থ হবেন। ব্যাটলফিল্ড ফোরের সবচেয়ে অদ্ভূত ব্যাপার এর যুদ্ধক্ষেত্র যে কোনও ধরনের ধারাবাহিকতাবিহীন।

ব্যাটলফিল্ড ফোর শুরু হয় ৩২ জন যোদ্ধার দল নিয়ে। শুরু হয় বিশাল এক বাঁধের বিস্ফোরণের মধ্য দিয়ে। বন্যা এসে ভাসিয়ে নিয়ে যায় কয়েক টন রুবল। ভাসিয়ে নিয়ে যায় এলাকার অর্ধেক হোটেল আর স্নাইপারদের পছন্দসই সব জায়গা।

সচরাচর এ ধরনের বড় দুর্যোগ দীর্ঘস্থায়ী ভূ-প্রাকৃতিক পরিবর্তন নিয়ে আসে, যা যোদ্ধাদের বাধ্য করে তাদের বুদ্ধিমত্তার সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে। তাদেরকে ওই ভয়ংকর বিভীষিকাময় পরিবেশে বেঁচে থাকতে সাহায্য করবে। প্রাথমিক ধাক্কা শেষ হওয়ার পর আবার এই ভেবে বসে থাকলে চলবে না যে এখন বিশ্রামের সময়। কারণ চারদিকে বিশ্বযুদ্ধের দামামা বাজছে। বন্যার পানি সরে গেলে বিশাল বিশাল ট্যাঙ্ক আর সাঁজোয়া যান মহড়া দিতে হাজির হবে। আর গেমারদের শুরু করতে হবে ব্যাটলফিল্ড ফোরের যুদ্ধযাত্রা। এখানে গেমারের জন্য সবচেয়ে বড় প্রতিযোগী পরিবেশ, এমনকি সবচেয়ে বড় বন্ধুও। গেমারকে ব্যাটলফিল্ডে যুদ্ধের পাশাপাশি খুঁজতে হবে লুকানো এবং বেঁচে থাকার জন্য এবং বাঁচিয়ে রাখার এলাকা। আর মৌলিক ব্যাটলফিল্ড গেমিংয়ের মতো যেকোনো স্ট্রাকচার ব্যবহারযোগ্য ও ধ্বংসযোগ্য। গেমাররা গেরিলা আক্রমণ ও পরিকল্পনা করা চোরাগোপ্তা হামলার ওপর বেশি গুরুত্ব দেন।

ব্যাটলফিল্ড ফোর খেলার সময় গেমারকে একটি জিনিস প্রতিটি মুহূর্তে মাথায় রাখতে হবে, যেকোনো মুহূর্তের সুযোগই সবচেয়ে বড় যুদ্ধ জিতিয়ে দিতে পারে।

যা যা লাগবে:

অপারেটিং সিস্টেম- উইন্ডোজ এক্সপি/ভিসতা/সেভেন, প্রসেসর: কোর টু ডুয়ো/এএমডি অ্যাথলন, র‌্যাম: ১ গিগা, গ্রাফিকস কার্ড: ৫১২ মেগা, ফ্রি হার্ডডিস্ক স্পেস: ১২ গিগাবাইট ।

-আনোয়ারুল ইসলাম জামিল

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।