সকাল ০৮:১৪ ; রবিবার ;  ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৯  

নারী উন্নয়নে বরাদ্দ ১০০ কোটি টাকা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

নিজস্ব প্রতিবেদক॥

অর্থমন্ত্রী অাবুল মাল অাবদুল মুহিত তার বাজেট বক্তৃতায় বলেছেন, নারী ও শিশুদের সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্যে অামরা প্রস্তুত করেছি নারী উন্নয়ন নীতি ২০১১ এবং জাতীয় শিশু নীতি ২০১১। এছাড়া নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা রোধে প্রণয়ন করা হয়েছে ' পারিবারিক সহিংসতা (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা ) অাইন ২০১০।

সরকারের বিভিন্ন কর্মসূচিতে নারীদের অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করতে ৪০টি মন্ত্রণালয়ের জেন্ডার সংবেদনশীল বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে। বিভিন্ন শিল্পে শিশুশ্রম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অটিষ্টিক শিশু কিশোরদের কল্যাণে অটিজম ট্রাস্ট গঠনসহ জাতীয় অার্ন্তজাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

অর্থমন্ত্রী তার বাজেট বক্তৃতায় বলেছেন, দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিত করতে হলে মোট জনসংখ্যার অর্ধেক নারীদের এগিয়ে নিতে হবে। সেই উদ্দেশ্যে রাষ্ট্র ও জনজীবনের সব ক্ষেত্রে নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা এবং সব ধরনের বৈষম্য দূরীকরণের লক্ষ্যে বেশ কয়েকটি যুগান্তকারী নীতিমালা করেছি।

নারীর প্রতি সহিংসতা, যৌন নিপীড়ন ও হয়রানি রোধ, নারী ও শিশু পাচার রোধ সংশ্লিষ্ট অাইনের যথাযথ প্রয়োগ করবে সরকার।

পাশাপাশি ধর্মের অপব্যাখ্যার মাধ্যমে নারী বিদ্বেষী প্রচারণা ও সামাজিক বিধি নিষেধের অারোপের বিরুদ্ধে সামাজিক, অর্থনৈতিক ও অাইনগত প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। নারীকে স্বাবলম্বী করে তোলার লক্ষ্যে ক্ষুদ্র ঋণ কার্যক্রম সম্প্রসারণ করা হবে, নারী উদ্যেক্তাদের জন্য বিশেষ প্রণোদনা অব্যাহত রাখা হবে এবং নারী উন্নয়নের জন্য ১০০ কোটি টাকা থোক বরাদ্দ থাকবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, শিশুদের জন্য তাদের স্বতন্ত্র বাজেট প্রনয়নের পরিকল্পনা রয়েছে। অাগামি ২০১৬ অর্থবছর থেকে তারা পরীক্ষমূলক শিশু বাজেট দেওয়ার অাশাবাদ ব্যক্ত করেন। ২০১৪- ১৫ অর্থবছরে শিশুদের উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য ৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখার প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী।

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।