রাত ০৪:২৪ ; মঙ্গলবার ;  ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯  

উপজেলায় প্রসূতিসেবা খুবই নাজুক : গবেষণা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল ॥

বাংলাদেশের উপজেলা পর্যায়ে প্রসূতিসেবার মান অত্যন্ত নিচু। দ্য ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফোর ডায়রিয়াল ডিজিজ অ্যান্ড রিসার্চ বাংলাদেশ (আইসিডিডিআরবি) এর এক গবেষণায় দেখা যায় ৭০% উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোনে গাইনিকোলজিস্ট, প্রশিক্ষিত ধাত্রী ও এনেসথেসিস্ট নেই।

বৃহস্পতিবার আইসিডিডিআরবির সাশাকাওয়া মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ২০১২ সালে করা ওই গবেষণার প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

প্রতিবেদন থেকে আরও জানা যায় ১৫% নারী গর্ভকালী প্রসবের সময় ও প্রসূতিপরবর্তী বিভিন্ন জটিলতায় ভোগেন কিন্তু প্রচুর নারী এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলো থেকে কোনেরকম সেবা পান না। প্রসবকালীন জটিলতা ও অপরিপক্ব শিশুর জন্য নবজাতক যত্ন কেন্দ্র ও শিশু চিকিৎসক নেই ৮০% ক্ষেত্রে।

বাংলাদেশের প্রসূতি মা ও নবজাতক শিশুর স্বাস্থ্য পরিষেবার উন্নতির জন্য আইসিডিডিআরবি একটি সুপারিশমালাও দিয়েছে সংবাদ সম্মেলনে।

প্রতিষ্ঠানটির প্রজনন স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান ড. মাহবুব--ইলাহী বলেন, তারা এই ক্ষেত্রে ঘাটতিগুলো খুঁজে বের করার জন্য দেশের ২৪টি জেলায় আরেকটি প্রয়োজন নিরূপ গবেষণা ( নিড এসেসমেন্ট স্টাডি) পরিচালনা করেছেন। তিনি বলেন, গবেষণাটিতে সরকারি ও বেসরকারি উভয় খাতকেই বিবেচনায় আনা হয়েছে।

ইউএনএফপিএর অংশীদারিত্বে ও কানাডার ডিপার্টমেন্ট অ ফরেন এফেয়ারর্স, ট্রেড অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের আর্থিক সহায়তায় করা এই গবেষণায় ২০১২ সালের মার্চ থেকে অক্টোবর পর্যন্ত জরিপ চালানো হয়।

গবেষণায় দেখা যায়, এই জেলাগুলোতে ৭২% নারী প্রসূতিকালীন জটিলতায় ১ ঘণ্টা দূরত্বের মধ্যে প্রাথমিক প্রসূতিসেবা ও ২ ঘণ্টার মধ্যে জরুরি অবস্থার সেবা পেতে পারেন। জরুরি অবস্থায় রক্ত পান ৪০% এরও কম প্রসূতি নারী।

বেসরকারি খাতে ৯০% ক্ষেত্রেই সিজারিয়ান সেকশনের ব্যবস্থা থাকলেও রক্ত দেওয়ার ব্যবস্থা নেই যা এ ধরনের অস্ত্রপচারের জন্য অত্যন্ত জরুরি।

সরাকারি খাতে প্রসূতির প্রয়োজনের তুলনায় হাসপাতালে বেডের কমতি আছে ৪২%। প্রসূতিপরবর্তী রক্তক্ষরণ বন্ধ করার মতেখুব জরুরি ওষুধ অক্সিটকিক্স পাওয়া যায় মাত্র ২৫% স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

শিশুর জন্য ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের সুপারিশ মোতাবেক মানসম্পন্ন সেবা, যেমন জন্মপূর্ববর্তী সমস্যা, নবজাতকের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও যত্ন কেন্দ্র এবং জন্মপরবর্তী চিকিৎসা সেবা পাওয়া যায় ৪০% এরও কমক্ষেত্রে।

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।