সকাল ১১:৪২ ; বুধবার ;  ২০ জুন, ২০১৮  

জঙ্গি আস্তানায় অভিযান: এ পর্যন্ত যা জানি...

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

রাজধানীর মিরপুরের জঙ্গি আস্তানায় বৃহস্পতিবার অভিযান চালিয়ে সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ। যাদের মধ্যে তিনজন জেএমবির গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। এসময় ১৬টি গ্রেনেডও  উদ্ধার করা হয়। অভিযান প্রক্রিয়া সম্পর্কে এ পর্যন্ত যেসব ঘটনা ঘটেছে তাই তুলে ধরা হয়েছে এই প্রতিবেদনে।

  • বুধবার জেএমবির গুরুত্বপূর্ণ একজন সদস্যকে আটক করা হলে তার দেওয়ার তথ্যের ভিত্তিতে রাত ৩টায় মিরপুর ১ এর রোড-৯,ওয়ার্ড-৮, ব্লক-এ শিশু পার্কের পাশের ৩নং বাড়িতে  অভিযান চালানো হয়।
  • ভবনটির ভাড়াটিয়াদের নিরাপত্তার জন্য তাদের অন্য স্থানে সরিয়ে নিয়ে এই অভিযান চালানো হয়।
  • অভিযানে কাজ করে র‌্যাব-পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাঁচটি ইউনিট।
  • অভিযান টের পেয়ে জঙ্গিরা দেশীয় পদ্ধতিতে তৈরি গ্রেনেড বিস্ফোরণ ঘটায়। তারা তখন ছয়তলা ভবনের ষষ্ঠতলায় অবস্থান করছিল।
  • আইনশৃঙ্খলা বাহিনীও প্রতিরোধে আর্ম গ্রেনেডসহ বিভিন্ন বিস্ফোরক দিয়ে বিস্ফোরণ ঘটায়।
  • এরপর ভবনটিতে ঢুকে বোম ডিসপোজাল ও সোয়াট টিম ষষ্ঠতলা থেকে সাতজনকে আটক করে। আটকৃতদের মধ্যে তিনজন জেএমবির গুরুত্বপূর্ণ সদস্য।
  • অভিযানে একটি গ্রেনেড ভর্তি বস্তা উদ্ধার করা হয়েছে। যার ভেতরে ১৬টি গ্রেনেড পাওয়া গেছে।
  • অভিযানে ট্রাঙ্কের ভেতর বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরকও উদ্ধার করা হয়েছে যা দিয়ে প্রায় ১০০টি গ্রেনেড বানানো সম্ভব।  এছাড়া আটককৃতদের কাছ থেকে জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়। 
  • এছাড়া বাসাটির বাম পাশের একটি পরিত্যক্ত ভবন থেকে উদ্ধারকৃত ৫টি গ্রেনেড নিষ্ক্রিয়  করেছে ডিবির বোম ডিসপোজাল টিম।
  • আকটকৃতরা জেএমবি নেতা মাওলানা সাইদুর রহমানের বিরোধী গ্রুপের সদস্য। এরা শিবিরের সাবেক ক্যাডার বলে জানা গেছে।
  • হোসেনি দালান ও ব্যাংক ডাকাতির ঘটনায় যে গ্রেনেড ব্যবহার করা হয়েছিল এখানেও ঠিক সে ধরনের গ্রেনেড পাওয়া গেছে।  
  • প্রায় ১৪ ঘণ্টা পর বিকাল ৪টায় অভিযান কার্যক্রমের প্রক্রিয়া শেষ হয়।

 

 

ছবি: নাসিরুল ইসলাম।

/এআর/এফএস/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।