রাত ০৫:৩৮ ; সোমবার ;  ১০ ডিসেম্বর, ২০১৮  

বান্দরবানে বহিরাগত প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা: ক্ষতির আশঙ্কা পর্যটন ব্যবসায়ীদের

প্রকাশিত:

এস বাসু দাশ, বান্দরবান।।

আসন্ন পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বান্দরবানে ভোটার ছাড়া বহিরাগতদের অবস্থানের ওপর নির্বাচন কমিশনের নিষেধাজ্ঞা থাকায় পর্যটন শিল্পে ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন জেলার পর্যটন ব্যবসায়ীরা।

বান্দরবান জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, আগামী ২৮ ডিসেম্বর দিনগত রাত ১২টা থেকে ১ জানুয়ারি রাত ১২টা পর্যন্ত ভোটার ছাড়া কোনও বহিরাগত বান্দরবানে অবস্থান করতে পারবেন না। বান্দরবান পৌরসভার নির্বাচন প্রভাবমুক্ত, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে নির্বাচন কমিশন এই সিদ্ধান্ত নিয়ে জেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে একটি চিঠি পাঠায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বহিরাগতদের বান্দরবান অবস্থানে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি জানিয়ে জেলা শহরের হোটেল-মোটেল মালিকদের কাছে চিঠি পাঠানো হয় বুধবার। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তথা রিটার্নিং অফিসার এই চিঠি পাঠান।

বান্দরবানের হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সূত্রে জানা যায়, পর্যটন মৌসুমকে কেন্দ্র করে জেলার নীলাচল, নীলগিরি, স্বর্ণ মন্দির, মেঘলা, চিম্বুকসহ বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটকদের ভিড় দিন দিন বাড়ছে। হোটেলগুলোতে সিট খালি নেই। কিন্তু নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই আদেশের কারণে পর্যটন ব্যবসায়ীরা ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সন্মুখীন হবে।

শহরের গ্রিন হিল হোটেলের ম্যানেজার আশিষ ধর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মন্দা কাটিয়ে ব্যবসা একটু চাঙ্গা হলেও পাঁচ দিনের এই  নিষেধাজ্ঞার কারণে আমাদের ক্ষতি হবে।’

আরও জানা গেছে, জেলা শহরের ৪৫টি হোটেল-মোটেলের প্রায় সবগুলোতেই অগ্রিম বুকিং ছিল। কিন্তু নির্বাচনের সময় নিষেধাজ্ঞার কারণে পর্যটকরা একে একে বুকিং বাতিল করছেন। অন্যদিকে জেলার লামা উপজেলার হোটেল-মোটেলগুলোর জন্যও একই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। বান্দরবানে বহিরাগতসহ পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকায় জেলার রুমা, থানছি উপজেলার পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটকের সংখ্যা শূন্যের কোটায় নেমে আসবে।

বান্দরবানের হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সভাপতি অমল দাশ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘পর্যটন মৌসুম হওয়ার কারণে এই নিষেধাজ্ঞায় আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হবো।’

এদিকে বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বৈঠকে স্থানীয় হোটেল-মোটেল ব্যবসায়ীরা এই নিষেধাজ্ঞা শীতিল করতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসক মিজানুল হক চৌধুরীকে অনুরোধ করবেন বলে জানা গেছে।

তবে বান্দরবানের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আবু জাফর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ভোটার ছাড়া অন্য কোনও লোক নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ অনুসারে অবস্থান করতে পারবে না।’

প্রসঙ্গত, ৩০ ডিসেম্বর বান্দরবান পার্বত্য জেলায় জেলা সদর ও লামা পৌরসভায় পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

/এফএস / এএইচ/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।