রাত ০২:২২ ; সোমবার ;  ০৫ ডিসেম্বর, ২০১৬  

প্রীত রেজার ওয়েডিং ফটোগ্রাফির ১০ বছর উদযাপন

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

লাইফস্টাইল রিপোর্ট।।

দেখতে দেখতে  কর্মজীবনের ১০ বছরে পা রাখলেন বাংলাদেশের প্রফেশনাল ওয়েডিং ফটোগ্রাফির পুরোধা প্রীত রেজা। এ উপলক্ষে প্রীত রেজাকে সম্মাননা দেওয়া হয়েছে। উদযাপনটির পুরো আয়োজন করেছে ওয়েডিং অ্যান্ড পোর্ট্রেইট ফোটোগ্রাফারস বাংলাদেশ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন সংগঠনটির মহাসচিব সজিব পল।

২৩ ডিসেম্বর রাজধানীর ইএমকে সেন্টারে এই সম্মাননার আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সজিব পল বলেন, বাংলাদেশের ওয়েডিং ফটোগ্রাফিতে প্রীত রেজা পথিকৃত স্বরূপ। গোড়ার দিকে এই ওয়েডিং ফটোগ্রাফি ছিল অনেকটা অচ্ছুত পেশা। আজ সেই অনার্য পেশাটিই হয়ে উঠেছে তরুণদের অন্যতম পছন্দের পেশা। গত এক দশকে এই যাত্রায় নিজের পদচারণা নিয়েও কথা বলেন সজিব। তিনি বলেন, এটি অবশ্যই আমার জন্য সম্মানজনক।

সম্মাননা পেয়ে প্রীত রেজা বলেন, ‘যখন শুরু করেছিলাম বিয়ের ছবি তোলা তখন জানতাম না কোথায় যাব বা কদ্দুরই বা যাব। কোনও কিছুই অনুকূলে ছিল না। কিন্তু জানতাম একটি জায়গায় ঠিক পৌঁছাব যদি জেদ আর একাগ্রতা থাকে।’

আজকে ১০ বছর পর প্রীত রেজা ওয়েডিং অ্যান্ড পোর্ট্রেট ফটোগ্রাফার্স বাংলাদেশ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। ফুজি ফিল্ম বাংলাদেশের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর তিনি। বাংলাদেশের প্রথম আলোকচিত্র বিষয়ক টেলিভিশন অনুষ্ঠান ডার্করুমের পরিকল্পনাকারী ও গবেষক উপস্থাপক তিনি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বিশিষ্ট লেখক সাংবাদিক আনিসুল হক, খ্যাতনামা আলোকচিত্রী নাসির আলি মামুন, আকাশ মাহমুদ, বিবিয়ানার কর্ণধার লিপি খন্দকার, রেড বিউটি স্যালনের আফরোজা পারভিন্সহ আরও অনেকে।  

বাংলাদেশে পোর্ট্রেট ফটোগ্রাফির প্রথা প্রতিষ্ঠাতা নাসির আলী মামুন বলেন, "ওয়েডিং ফটোগ্রাফি যে কোথায় চলে গেছে সেটা প্রীত রেজার ছবি না দখেলে আমার জানাই হতো না। প্রীত রেজা ছবি তোলাকে শিল্পের র্পযায়ে তুলে দিয়েছে।”

আলোকচত্রিী আক্কাস মাহমুদের মতে “ওয়েডিং ফটোগ্রাফিতে প্রীত একটি মাইলফলক।

ছবি: সাজ্জাদ হোসেন।

/এফএএন/   

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।