ভোর ০৬:১৩ ; রবিবার ;  ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬  

বিটিআরসির অধীনে যাচ্ছে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা?

প্রকাশিত:

টেক রিপোর্ট।।

মোবাইল ব্যাংকিং সেবা আরও নিরাপদ করা এবং লাইসেন্সিং -এর আওতায় আনতে সব ধরনের আর্থিক সেবা (মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস) টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসির অধীনে আনা হচ্ছে। ইতিমধ্যে বিষয়টি নিয়ে বিটিআরসি কাজ শুরু করেছে বলে জানা গেছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের জন্য ব্যাংকগুলোকে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে অনুমোদন নিলেই চলত। কিন্তু এখন সেই প্রক্রিয়ায় নতুন করে যুক্ত হচ্ছে লাইসেন্সিং বা অনুমোদন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব এম রায়হান আখতার জানান, টেলিযোগাযোগ আইন অনুসারে টেলিযোগাযোগ মাধ্যম  (বিশেষ করে মোবাইল) ব্যবহার করে যেকোনও ধরনের সেবা দিতে হলে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের অনুমোদন নিতে হবে।  কিন্তু মোবাইল ব্যাংকিংয়ের বেলায় সে ধরনের কোনও অনুমোদন নেওয়া হতো না। তিনি আরও বলেন, মোবাইল ব্যাংকিং লাইসেন্সিংয়ের আওতায় এলে তা দুটি নিয়ন্ত্রক সংস্থার অধীনে থাকবে। তখন ব্যাংকিং বিষয়গুলো দেখবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং টেলিযোগাযোগ বিষয়গুলো দেখবে বিটিআরসি।

ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, মোবাইল ব্যাংকিং নিয়ে নতুন গাইডলাইন তৈরি করা হবে এবং ওই গাইডলাইনে লাইসেন্সিং বিষয়টি ঢুকিয়ে দেওয়া হবে। নতুন নিয়ম কার্যকর হলে মোবাইল ব্যাংকিং সেবাদানকারী সব প্রতিষ্ঠানকে বিটিআরসি থেকে পারমিশন বা অ্যাপ্রুভাল নিতে হবে।

তিনি আরও উল্লেখ করেন, মোবাইলফোন অপারেটরদের কোনও একটা অনুমতি তো বিটিআরসি থেকে নিতেই হবে। তা না হলে মোবাইল ব্যবহার করে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা দেওয়া হবে টেলিযোগাযোগ নীতিমালার সঙ্গে সাংঘর্ষিক।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বিষয়টি চূড়ান্ত করতে এরইমধ্যে মোবাইলফোন অপারেটর ও বিটিআরসির মধ্যে একাধিকবার বৈঠক হয়েছে। গঠন করা হয়েছে একটি কমিটি।

প্রসঙ্গত, দেশে বর্তমানে প্রতিদিন সাড়ে ৪০০ কোটি টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লেনদেন হচ্ছে।

/এইচএএইচ/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।