রাত ০৩:১৫ ; সোমবার ;  ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭  

সঞ্জীব চৌধুরীর জন্মদিনে ‘বেনানন্দ’

প্রকাশিত:

বিনোদন প্রতিবেদক।।

প্রয়াত সংগীতশিল্পী সঞ্জীব চৌধুরী ও বাপ্পা মজুমদারকে বাংলা ব্যান্ডের অন্যতম জুটি বিবেচনা করা হয়। ২৫ ডিসেম্বর সঞ্জীব চৌধুরীর জন্মদিন। আর এদিনে তাকে উৎসর্গ বাপ্পা ও তার বন্ধুরা তাদের প্রথম অ্যালবাম প্রকাশ করছেন। আগামীকাল (২৪ ডিসেম্বর) সিডি সংস্করণে উন্মোচন হচ্ছে ‘বাপ্পা মজুমদার অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’র প্রথম স্টুডিও অ্যালবাম ‘বেনানন্দ’।

এদিন সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি রেস্তোরাঁয় অ্যালবামটির মোড়ক খোলা হবে। ব্যান্ডের সদস্যদের পাশাপাশি এতে উপস্থিত থাকবেন অ্যালবামটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জিরোনা বাংলাদেশ প্রাইভেট লিমিটেড ও এমকে গ্রুপের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান, নাট্যব্যক্তিত্ব শংকর সাঁওজাল, সংগীত পরিচালক পার্থ মজমুদার, রবি আজিয়েটার জেনারেল ম্যানেজার ফয়সাল মাহমুদসহ অনেকে।
‘বেনানন্দ’ অ্যালবামটি প্রকাশ করছে জিরোনা বাংলাদেশ। এটি সারাদেশে পাওয়া যাবে ১ ডিসেম্বর থেকে।
‘বেনানন্দ’ সাজানো হয়েছে ৮টি লোকগান নিয়ে। এরমধ্যে তিনটি লালনের- ‘জাত গেল জাত গেল বলে’, ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি’ এবং ‘বাড়ির পাশে আরশী নগর’। তিনটি রাধারমনের- ‘বনমালী তুমি পরজনমে হইও রাধা’, ‘কারে দেখাব মনের দুঃখ গো’ এবং ‘শ্যাম কালিয়া সোনা বন্ধু রে’। একটি গান হাছন রাজার ‘আগুন লাগাইয়া দিলো কনে’ এবং একটি মন মোহন দত্তের ‘বেনানন্দ’ (বাঁশপাতা আর কলমিলতা)।

বাপ্পা মজুমদার বলেন, ‘আধুনিক গান করে পরিচিতি পেলেও লোকগানও আমার খুব পছন্দের বিষয়। মাঝে মধ্যে লোকগান করেও থাকি। লোকগানই কিন্তু সংগীতের ক্ষেত্রে আমাদের নিজস্ব পরিচয় বহন করে। ইচ্ছা ছিল, কখনও সুযোগ পেলে লোকগানের পুরো অ্যালবাম করার। সঞ্জীব দা’র জন্মদিনে অ্যালবামটি প্রকাশ করতে পারছি, এটা আমার জন্য অন্যরকম এক অনুভূতি।’

উলে­খ্য, গত ১ নভেম্বর থেকে রবি রেডিওতে শোনা যাচ্ছে অ্যালবামটির সব গান।

‘বাপ্পা মজুমদার অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’র সদস্যরা হলেন-বাপ্পা মজুমদার (ভোকাল, গিটার ও দলনেতা), সোহেল আজিজ (কিবোর্ড), জন শার্টন (বেজ), মামুস (গিটার), ডানো (ড্রামস) এবং শাহান কবন্ধ (ম্যানেজার)
/এম/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।