সকাল ০৮:৪৪ ; বৃহস্পতিবার ;  ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮  

গুরুতর অপরাধ: ভারতে ১৮ নয়, ১৬ বছর থেকেই প্রাপ্তবয়স্ক

প্রকাশিত:

বিদেশ ডেস্ক।।

ধর্ষণ কিংবা হত্যার মতো গুরুতর মামলায় ১৬ বছর কিংবা এর বেশি বয়সী কিশোরদের প্রাপ্তবয়স্কদের মতো করেই বিচার করার অনুমোদন দিয়ে বিল পাস করেছে ভারতের রাজ্যসভা। গত মে মাসে বিলটি পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষ লোকসভায় অনুমোদিত হয়েছিল। বিলটিকে আনুষ্ঠানিকভাবে আইনে পরিণত করতে এখন শুধু ভারতের রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষরের অপেক্ষা।

মঙ্গলবার ‘জুভেনাইল জাস্টিস’ নামের বিলটি ভারতের পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষ রাজ্যসভায় পাস হয়। দেশটির বর্তমান আইন অনুযায়ী, যাদের বয়স ১৮ বছরের নিচে তাদেরকে সাজা হিসেবে সর্বোচ্চ তিন বছরের জন্য সংশোধন কেন্দ্রে রাখা যায়।

২০১২ সালে দিল্লিতে চলন্ত বাসে মেডিকেল শিক্ষার্থী ‘নির্ভয়া’ ধর্ষণের ঘটনায় কিশোর অপরাধ বিবেচনায় এক ধর্ষককে তিন বছরের সাজা দেওয়ার পর আইনটি পরিবর্তনের দাবি জোরালো হয়ে ওঠে। তবে নতুন আইনটি ২০১২ সালের সে অপরাধীর ওপর এখন আর প্রয়োগ করার সুযোগ নেই। পরবর্তীতে এ ধরনের গুরুতর ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে নতুন আইন ব্যবহার করা যাবে। রাজ্যসভায় বিলটি পাসের সময় নির্ভয়ার মা-বাবাও উপস্থিত ছিলেন।

২০১২ সালের ১৬ই ডিসেম্বর চলন্ত বাসে ধর্ষণের শিকার হন ওই মেডিকেল শিক্ষার্থী। ওই ঘটনার পর দেশ জুড়ে বিক্ষোভ-আন্দোলন-প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। দেশবাসীর কাছে ওই শিক্ষার্থীর নাম হয়ে উঠেছিল ‘নির্ভয়া।

‘নির্ভয়া' ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় সাজা পাওয়া ৫ জনের মধ্যে ওই কিশোর অপরাধী সবচেয়ে ছোট। বাকি চারজনকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হলেও সংশোধন কেন্দ্রে রাখা হয় ওই কিশোরকে। ঘটনায় জড়িত আরেক আসামি বিচার চলাকালে কারাগারেই মারা যান।

রবিবারই তিন বছরের শাস্তির মেয়াদ সম্পূর্ণ হয় ওই কিশোর অপরাধীর। মেয়ের মৃত্যুর তিন বছর পর সমস্ত কুন্ঠা ত্যাগ করে নির্ভয়ার আসল নাম জ্যোতি সিং বলে জানান তার মা আশা। কিশোর অপরাধীর মুক্তির বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়ে বলেন, ‘এ কেমন কী বিচার!’ সে দিন চিৎকার করে তিনি বলেছিলেন, ‘আমি জানি না ওর (কিশোর অপরাধীর) বয়স ১৬ না ১৮। শুধু জানি, ও একটা নৃশংস অপরাধ করেছে। আর এমন অপরাধীর কোনও বয়স-সীমা হতে পারে না।’ 

নতুন আইনটি কিশোরদের গুরুতর অপরাধ থেকে বিরত রাখবে বলে বলে মনে করেন এর সমর্থক। অন্যদিকে সমালোচকদের মতে,ভারত এ আইনের মধ্য দিয়ে জাতিসংঘের শিশু অধিকারবিষয়ক কনভেনশনকে লঙ্ঘন করবে ভারত। সূত্র: বিবিসি, এনডিটিভি

/এফইউ/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।