রাত ১০:৩৩ ; মঙ্গলবার ;  ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭  

থার্টি ফার্স্ট নাইটে সোলসের সিডিউল ফাঁকা!

প্রকাশিত:

মাহমুদ মানজুর।।

শিরোনাম পড়ে প্রথমেই বলবেন, এমনটা হতেই পারে না। পরক্ষণেই ভেবে বসবেন, এই শিরোনাম সংবাদওয়ালাদের ‘কারসাজি’। প্রতিবেদকও একমত, আপনার এমন বিরুদ্ধাচরণ কিংবা সন্দেহের সঙ্গে। কারণ জন্মলগ্ন থেকে গত বছর নাগাদ দেশের প্রাচীন এই ব্যান্ডটির ‘থার্টি ফার্স্ট’ নাইটে বসে থাকার একটিও নজির নেই। অথচ আসছে থার্টি ফার্স্ট নাইটে ৪০ বছর বয়সী এই ব্যান্ডটিকে নাকি কোথাও পাওয়া যাবে না, গিটার-গান-মঞ্চে। খবরটি বাংলা ট্রিবিউনকে মঙ্গলবার দুপুরে নিশ্চিত করলেন খোদ ব্যান্ডের প্রধান তারকা পার্থ বড়ুয়া।

জিজ্ঞাসা ছিল, এবার থার্টি ফার্স্ট রাতে সোলস মাতাবে কোথায়? কক্সবাজার, পতেঙ্গা নাকি অন্য কোথাও? পার্থ বড়ুয়ার স্পষ্ট জবাব ছিল, ‘কোথাও না। বেকার থাকার সম্ভাবনা আছে।’ কথাটি এমন ভাবে বললেন, স্পষ্ট আভাস মিলল, ব্যান্ডের বর্তমান করুণ অবস্থার। মনগড়া ধরে নিতে পারবেন, কেউ বোধহয় এখন আর সোলস’কে গাইতে ডাকেই না! অথচ দেশের তিনটি ব্যস্ত ব্যান্ড তালিকার একটি হিসেবে ছিল সোলসের নাম।

সোলস

হঠাৎ কেন এমন হলো? প্রশ্নটির পেছনের ‘প্রশ্ন’ ঠিকই অনুমান করতে পেরেছেন এই সংগীত-অভিনয় তারকা। বললেন, ‘অবাক হওয়ার কিছু নেই। থার্টিফার্স্ট এর শো হাতে অনেক আছে। কিন্তু এখনও কাউকেই কথা দিইনি। কারণ, দুশ্চিন্তায় আছি শরীরে কুলাবে কিনা! শেষ পর্যন্ত কোথাও শো না করার সম্ভাববনা এখনও শতভাগ। দেখা যাক কি হয়। কারণ আগে শরীর পরে গান-টাকা-হাততালি।’

পাঠক-ভক্তদের বলে রাখা দরকার, পার্থ বড়ুয়া ক’দিন আগে টাইফয়েড অসুখে বিছানায় পড়েছিলেন। শুধু বিছানা নয়, টানা চারদিন হাসপাতালেও কাটাতে হয়েছে। বাসায় ফিরেছেন সপ্তাহ খানেক হয়। শরীর থেকে এখনও টাইফয়েড বনাম অ্যান্টিবায়োটিকের ধকল কাটেনি সম্ভবত। সে জন্যই কী থার্টি ফাস্ট-এর শো হাতে নিচ্ছেন না? জবাবটা ভিরমি খাওয়ার মতো ছিল। বললেন, ‘গিটার হাতে মঞ্চে উঠলে সব অসুখ উবে যায়। তখন অসুখ-শরীর বিষয় থাকে না। তাছাড়া টাইফয়েড কেটে গেছে এক সপ্তাহ হলো। এখন বেশ সুস্থ। অসুখ বিরতির পর চলছে হরদম অনুশীলন।’

এমন মন্তব্য করেই সোলসের সূচির খাতা উল্টে পার্থ শোনালেন যা, তা এমন- ২৪ ডিসেম্বর সিলেট ক্যাডেট কলেজ, ২৫ ডিসেম্বর ময়মনসিংহ গার্লস ক্যাডেট কলেজ, ২৬ ডিসেম্বর ঢাকা ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ২৯ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো, ৩০ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এবং ১ ও ৩ জানুয়ারিতে দুটো কনসার্টই হবে কক্সবাজার।

একদমে সিডিউলটা ঝেড়ে দিয়ে পার্থ বড়ুয়ার পাল্টা জিজ্ঞাসা ছিল, ‘এর পরেও কী ভাববেন- থার্টি ফাস্ট নাইটে সোলস বেকার!’

/এমএম/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।