সকাল ১১:০২ ; রবিবার ;  ২১ এপ্রিল, ২০১৯  

রানা প্লাজা ধ্স: ২৪ পলাতকের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

সাভারে রানা প্লাজা ধসের ঘটনায় দায়েরকৃত হত্যা মামলার চার্জশিট আমলে নিয়ে এই মামলায় পলাতক ২৪ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। আজ সোমবার ঢাকার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আল আমিন আসামিদের বিরুদ্ধে এ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

একইসঙ্গে তিনি আগামী ২৭ জানুয়ারি এই গ্রেফতারি পরোয়ানা সংক্রান্ত অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সাভার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্দেশ দিয়েছেন।

এই মামলার সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর আনোয়ারুল কবির বাবুল বাংলা ট্রিবিউনকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

হত্যা মামলার চার্জশিটে বলা হয়েছে, ভবনে ফাটল থাকায় যে কোনও সময় তা ধসে মৃত্যু হতে পারে জেনেও ওইদিন শ্রমিকদের বাধ্য করা হয়েছিল ভবনে প্রবেশ করতে। আর তারই ফলশ্রুতিতে ভবন ধসে শ্রমিকদের মৃত্যু হয়েছে।

চাঞ্চল্যকর এই মামলার মোট আসামি ৪১ জন। এরমধ্যে ২৪ জন পলাতক আছেন এবং ১৬ জন জামিন পেয়েছেন। এছাড়া মামলার মূল আসামি সোহেল রানা বর্তমানে কারাগারে আছেন। চার্জশিটভুক্ত আসামিরা হলেন, ভবন মালিক সোহেল রানা, তার বাবা আব্দুল খালেক ওরফে কুলু খালেক ও মা মর্জিনা বেগম, সাভার পৌরসভার মেয়র আলহাজ রেফাত উল্লাহ, কাউন্সিলর মোহাম্মাদ আলী খান, প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, উপ-সহকারী প্রকৌশলী রাকিবুল হাসান রাসেল, নিউওয়েব বাটন লিমিটেডের চেয়ারম্যান বজলুস সামাদ আদনান, নিউওয়েব স্টাইলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদুর রহমান তাপস, ইথার টেক্সটাইলের চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান ওরফে আনিসুজ্জামান, আমিনুল ইসলাম, সাইট ইঞ্জিনিয়ার মো. সারোয়ার কামাল, আবু বক্কর সিদ্দিক, মো. মধু, অনিল দাস, মো. শাহ আলম ওরফে মিঠু, মো. আবুল হাসান, সাভার পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা উত্তম কুমার রায়, সাবেক সহকারী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান, নগর পরিকল্পনাবিদ ফারজানা ইসলাম, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনের সাবেক উপ-প্রধান পরিদর্শক মো. আব্দুস সামাদ, উপ-প্রধান পরিদর্শক মো. জামশেদুর রহমান, উপ-প্রধান পরিদর্শক বেলায়েত হোসেন, পরিদর্শক প্রকৌশল মো. ইউসুফ আলী, মো. শহিদুল ইসলাম, ইমারত পরিদর্শক মো. আওলাদ হোসেন, ইথার টেক্সটাইলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জান্নাতুল ফেরদৌস, মো. শফিকুল ইসলাম ভূইয়া, মনোয়ার হোসেন বিপ্লব, মো. আতাউর রহমান, মো. আব্দুস সালাম, বিদ্যুৎ মিয়া, সৈয়দ শফিকুল ইসলাম জনি, রেজাউল ইসলাম, নান্টু কন্ট্রাকটার, মো. আব্দুল হামিদ, আব্দুল মজিদ, মো. আমিনুল ইসলাম, নয়ন মিয়া, মো. ইউসুফ আলী, তসলিম ও মাহবুবুল আলম।

এর আগে রানার বাবা-মাসহ ৪২ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার বিজয় কৃষ্ণ কর। পরিকল্পিত মৃত্যু ঘটানোর অভিযোগসহ বিভিন্ন অভিযোগে দণ্ডবিধির ৩০২/৩২৬/৩২৫/৩৩৭/৩৩৮/৪২৭/৪৬৫/৪৭১/২১২/১১৪/১০৯/৩৪ ধারায় এবং ১৯৫২ সালের ইমারত নির্মাণ আইনের ১২ ধারায় এই চার্জশিট দাখিল করা হয়। 

ছবি: নাসিরুল ইসলাম।

/এসআইটি/ইউআই/এসএম/

 

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।