রাত ০৩:০৬ ; সোমবার ;  ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭  

দরজা খুলেছে এলিটার ‘নবাব চাটগাঁ’র

প্রকাশিত:

বিনোদন প্রতিবেদক।।

আসিফ আকবর, এস আই টুটুল, হাবিব ওয়াহিদ, মিলন মাহমুদের পথ ধরে এবার রেস্তোরাঁ ব্যবসায় নাম লেখালেন সংগীতশিল্পী-সাংবাদিক এলিটা করিম। রবিবার দুপুরে তিনি সর্বসাধারণের জন্য দরজা খুলেছেন ‘নবাব চাটগাঁ’র। গুলশান ১-এ ১৯ নম্বর সড়কের ২৯ নম্বর বাড়িতে- ভোজনরসিকদের জন্য তার এই আয়োজন।

এলিটা বললেন, ‘আমি খেতে এবং খাওয়াতে পছন্দ করি। অনেকদিন ধরেই খাবার নিয়ে গবেষণা করছি। বেশ কয়েকবার পরিকল্পনা করেছি। ব্যবসায় আমার রাশি খারাপ- এই ভেবে এতদিন চাকরি আর গান গেয়েই দিন পার করেছি। এবার একটু সাহস করলাম, কারণ সঙ্গে আমার পুরো পরিবার আছে।’

এলিটা জানান, এটা তার একার নয়। পুরোটাই পারিবারিক বিজনেস। তবে এতদিন সেটা চট্টগ্রামে সীমাবদ্ধ ছিল। পরিবারের অন্যতম তিন সদস্যকে নিয়ে এবার ঢাকায় ‘নবাব চাটগাঁ’র যাত্রা শুরু করেছেন তিনি। সম্পর্কে তিনজনই তার আঙ্কেল। তারা হলেন শহিদুল ইসলাম, ওয়াসিউদ্দিন এবং ইফতেখার হোসাইন।

এলিটাদের ‘নবাব চাটগাঁ’র খাবার মেন্যুতে কী এমন বিশেষত্ব থাকছে? জবাবে এলিটা বলেন, ‘অবশ্যই বিশেষ কিছু থাকছে। না হলে মানুষ এখানে আসবে কেন? আমরা চেষ্টা করছি, খাবার মেন্যুতে চট্টগ্রামকেন্দ্রিক খাবারের ঐতিহ্য ধরে রাখার। বিশেষ করে সামুদ্রিক মাছ এবং শুঁটকি’র রকমারি ডিস তো থাকছেই। এরমধ্যে রূপচাঁদা, লইট্টা এবং চিংড়ি মাছ অন্যতম। আরও থাকছে চট্টগ্রামে ঐতিহ্যবাহী মেজবান খাবারের আবহ। থাকছে গরুর মাংসের কালাভুনাও। আমরা আসলে চট্টগ্রামের খাবারের ঐতিহ্য ঢাকার ডায়নিংয়ে পরিবেশন করতে চাই।’  

রেস্তোরাঁয় তদারকির সময় এলিটার সঙ্গে স্বামী-নির্মাতা আশফাক নিপুণ

এলিটা বর্তমানে তার নতুন রেস্তোরাঁয় আগত অতিথি আর ভোক্তাদের আপ্যায়নে টেবিল টু টেবিল ছুটে বেড়াচ্ছেন। জানতে চাইছেন, খাবারের স্বাদ। বুঝতে চাইছেন, কোনটাতে ঝাল বেশি আর কিসে লবণ কম। এলিটা বলেন, ‘এটা অন্যরকম অভিজ্ঞতা। খবর পেয়ে কণা (কণ্ঠশিল্পী) চলে এসেছে। আরও অনেকেই এসেছেন। তৃপ্তি নিয়ে খেয়েছেন। আর আমি মুগ্ধতায় ভেসেছি, সারাক্ষণ।’

না, এলিটা শুধু রেস্তোরাঁতেই ডুবে নেই। সঙ্গে সাংবাদিকতা (ডেইলি স্টার) আর গানের রিহার্সেলটা চালাচ্ছেন নিয়মিত। কারণ, চট্টগ্রাম খুলশি ক্লাবের আয়োজনে জিইসি কনভেনশন হলে বছরের শেষ রাত মাতাতে হবে কথা-গানে, তাকে।

‘নবাব চাটগাঁ’র ফেসবুক পেজ: https://m.facebook.com/NawabChatga/

/এস/এমএম/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।