রাত ০১:৪৫ ; মঙ্গলবার ;  ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯  

জমি নিয়ে বিপাকে বিলুপ্ত বাংলাদেশি ছিটবাসীরা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বিদেশ ডেস্ক।।

ভারতে জমি নিয়ে বিপাকে পড়েছেন বিলুপ্ত হওয়া বাংলাদেশি ছিটমহলগুলোর বাসিন্দারা। গত ১ আগস্ট থেকে ওইসব ভূখণ্ডের পুরো নিয়ন্ত্রণ ভারতের হাতে। তবে জমি সংক্রান্ত ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের অসহযোগিতার অভিযোগ তুলেছেন ভারতের কুচবিহার জেলার বিলুপ্ত হওয়া ছিটবাসীরা।

কয়েক একর জমির মালিক সাবেক পোয়াতারকুটি ছিটমহলের বাসিন্দা মনসুর আলী। ভারতীয় গণমাধ্যম দ্য হিন্দুকে তিনি বলেন, কয়েক প্রজন্ম ধরে আমরা যে জমি ভোগদখল করে আসছি আমরা চাই তা আমাদের নামেই থাকুক।

বিষয়টি নিয়ে এরইমধ্যে কুচবিহারের জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে স্মারকলিপি দিয়েছেন মানবাধিকার সমন্বয় কমিটি। ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে ভূমি সংক্রান্ত রেকর্ড গ্রহণ করা না হলে ‘অসহযোগ আন্দোলনের’ ডাক দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন তারা।

স্মারকলিপিতে স্বাক্ষরকারীদের একজন সাবেক ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক  দীপ্তিমান সেনগুপ্ত। তিনি বলেন, জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের পক্ষ থেকে একটি নোটিশ দেওয়া হয়। এতে বলা হয়েছিল, ২০১৫ সালের ৩০ নভেম্বরের আগে ছিটমহলের বাসিন্দারা কোনও জমি ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবেন না। কিন্তু ওই সময়সীমা পার হওয়া সত্ত্বেও ভূমি রাজস্ব কর্তৃপক্ষ এখনও কোনও জরিপের কাজ শুরু করেনি। ফলে মানুষের মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপারে দীপ্তিমান সেনগুপ্ত অভিযোগ করেন, নির্ধারিত সময় পার হলেও সাবেক ছিটমহলগুলোতে এখনও সঠিকভাবে জমিজমার রেকর্ড হচ্ছে না। এরফলে কিছু কিছু ছিটমহলের জমি এরই মধ্যে বেহাত হয়ে গেছে। কৃষ্ণপুর ছিটমহলের কিছু জমি এরইমধ্যে অবৈধ দখলদারদের হাতে চলে গেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

তবে কোচবিহার জেলার একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা দাবি করেন, ভূমির নিবন্ধন একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া এবং এতে সময় লাগবে। সূত্র: দ্য হিন্দু।

/এমপি/বিএ/টিএন/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।