রাত ০৩:২৫ ; শুক্রবার ;  ১৬ নভেম্বর, ২০১৮  

বাংলাদেশি ছবিতে নচিকেতা-অনুপম-সোনাম-অন্বেষা

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

ওয়ালিউল মুক্তা।।

‘সোনালি প্রান্তরে’ গানটি বোধহয় এদেশের নচিকেতা ভক্তদের অসম্ভব প্রিয়, হয়তো নচিকেতারও। ভারত-বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘হঠাৎ বৃষ্টি’তে গাওয়া এ গানটিসহ তার অসংখ্য গান দুই বাংলায় শ্রোতানন্দিত। তবে বাংলাদেশের প্লেব্যাকে নচিকেতার অভিষেক ঘটে এ ছবির মাধ্যমে। এরপর বেশ কয়েকটি বাংলাদেশি ছবি ও অ্যালবামে পাওয়া গেছে এ গায়ককে।

এবারও গাইলেন, তবে একটু ভিন্ন আবহের ছবিতে। তিনি একা নন, সঙ্গে আরও তিনটি গানে পাওয়া যাবে মুম্বাইয়ের সোনাম পুরি, কলকাতার অনুপম রায় ও অন্বেষাকে। যার মাধ্যমে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের নিজস্ব প্রযোজনার ছবিতে গাইলেন শেষের তিন শিল্পী।

ছবিটির নাম ‘যাযাবর’। ফয়সাল রদ্দি ও আসিফ ইসলাম পরিচালিত এটি একটি মিউজিক্যাল ফিল্ম। যাতে বাংলাদেশ-ভারতের ১৬ গায়ক কণ্ঠ দিয়েছেন। বাংলাদেশি শিল্পীদের মধ্যে আছেন মমতাজ, ফাহমিদা নবী, পান্থ কানাই, কণা, তৌফিক, মিনার, লেমিস, মিফতাহ জামান এবং ফয়সাল রদ্দি।

অক্টোবর মাসে ভারতের চার শিল্পীর গান রেকর্ড করা হয়েছে। এগুলো হলো নচিকেতার কণ্ঠে ‘চুপটি করে’, অনুপমের ‘প্রেমের গল্প’, সোনামের ‘প্রিয়তমা’ এবং অণ্বেষার ‘তোকে চাই’ শিরোনামের গান। অন্যদিকে বাংলাদেশের শিল্পীদের গানগুলোর কাজ চলছে এখন।

পরিচালক রদ্দি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘গল্পটা একজন গায়কের জীবন নিয়ে। যে নিজেই গান লিখে ও সুর করে। তখন মনে হলো, একজন গায়ক কথা বলছে গানের মতো করে, ভাবছে গানের মতো করে; তাহালে গান বেশি রাখাই উচিত। যার ফলে ১২টি গান এতে রাখা হয়েছে। এটি গানের ছবি হবে, রোমান্টিকও বটে।’

আরও বলেন, ‘আমি নিজেও গানের মানুষ। অনেকদিন ধরেই ছবির প্লটটা মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছিল। ছবির সবগুলো গান আমারই লেখা। এখন শুধু গান আর চিত্রনাট্য ধরে শ্যুটিং করার বাকি।’

আসছে জানুয়ারিতে (২০১৬) ছবিটির দৃশধারণ শুরু হবে। তার আগেই অভিনয়শিল্পী চূড়ান্ত হবে বলে জানালেন ছবিটির দুই পরিচালক ফয়সাল রদ্দি ও আসিফ ইসলাম।

দুই পরিচালক এর আগে ‘পাঠশালা’ নামের একটি শিশুতোষ চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। ছবিটি ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পাবে।

/এম/এমএম/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।