রাত ১০:২৮ ; শুক্রবার ;  ১৮ অক্টোবর, ২০১৯  

আন্দোলনের মাধ্যমে হারানো গণতন্ত্র ফেরানো হবে: বিএনপি

প্রকাশিত:

সম্পাদিত:

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট।।

মহান বিজয় দিবসে আবারও আন্দোলনের কথা বললেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে হারানো গণতন্ত্র পুনরায় ফিরিয়ে আনা হবে। বুধবার দুপুর সোয়া ১২টায় বিজয় দিবস উপলক্ষে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, ‘এই দিনে আমরা গণতন্ত্র পেয়েছিলাম। দেশের মানুষ ফিরে পেয়েছিল তাদের অধিকার। কিন্তু সেই গণতন্ত্র ও অধিকার আজ ভূলুণ্ঠিত। জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে হারানো গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা হবে।'

এদিকে, বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুলেল শ্রদ্ধা জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এরপর তিনি বেলা ১২ টার দিকে শেরে বাংলা নগরে চন্দ্রিমা উদ্যানে জিয়াউর রহমানের মাজারে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন। এসময় দলের কেন্দ্রীয় নেতারা তার সঙ্গে ছিলেন।

জিয়ার মাজারে শ্রদ্ধা জানানো শেষে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমরা যারা দীর্ঘকাল ধরে গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করছি তাদের ওপর নির্যাতন চলছে। জনগণ তাদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে দিয়ে এই অবস্থার পরিসমাপ্তি ঘটাবে। বিজয় অর্জন হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজকে এই দিনে মুক্তিযোদ্ধারা বাংলাদেশ স্বাধীন করেছিল। স্মরণ করি শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানকে, যিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে জাতিকে অনুপ্রাণিত করেছিলেন মুক্তিযোদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ার জন্য। শ্রদ্ধা জানাই, লাখো মানুষ যারা স্বাধীনতার জন্য প্রাণ দিয়েছিলেন। শ্রদ্ধা জানাই মুক্তিযোদ্ধাদের যাদের ত্যাগের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘যে চেতনা নিয়ে দেশে স্বাধীন হয়েছিল। দুঃখজনক হলেও সত্য আজকে সেই গণতন্ত্রিক চেতনা অনুপস্থিত। তাই জনগণ গণতন্ত্রকে ফিরে পাওয়ার জন্য যে আন্দোলন করছে। সেই আন্দোলন নিঃসন্দেহে তার লক্ষ্যে পৌঁছাবে। বাংলাদেশে জনগণ তাদের অধিকার ফিরে পাবে, একটি আন্দোলনের মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠা করে।’

খালেদা জিয়ার পুষ্পস্তবক অর্পণের পর জিয়ার সমাধিতে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, জাসাস, শ্রমিক দলসহ দলের অঙ্গ সংগঠনগুলো পৃথক পৃথক ভাবে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়।

 

 

/এসটিএস/এসটি/

***বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত কোনও সংবাদ, কলাম, তথ্য, ছবি, কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার দণ্ডনীয় অপরাধ। অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করলে কর্তৃপক্ষ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।